মালদ্বীপে ভয়াবহ আগুন, আশ্রয়হীন ১৬৫ বাংলাদেশি

  • আপডেট সময় : ০২:৫৮:০০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১০ জানুয়ারী ২০২৩
  • / 94
প্রবাসী কণ্ঠ অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মালদ্বীপের রাজধানী মালের একটি নিলাম মার্কেটে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। অগ্নিকাণ্ডের এই ঘটনায় মার্কেটের শ্রমিকদের একটি আবাসন ব্লক সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে। এতে অন্তত ১৬৫ বাংলাদেশি প্রবাসী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে অনেকেই অগ্নিকাণ্ডের সময় ধোঁয়ার কারণে সংজ্ঞা হারিয়ে ফেলেন।

মঙ্গলবার সকালের দিকে মালের সিটি কাউন্সিল আগুনে প্রবাসী শ্রমিকদের ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার এই তথ্য জানিয়েছে। দেশটির সংবাদমাধ্যম দ্য এডিশন বলছে, ভোর সাড়ে ৫টার দিকে শহরের দক্ষিণ পাশের নিলাম মার্কেট মালে নিলান ফিহারায় আগুন ছড়িয়ে পড়ে। অগ্নিকাণ্ডে সিটি কাউন্সিলের প্রবাসী কর্মচারীদের আবাসন ব্লক সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে।

সিটি কাউন্সিলের তথ্য অনুযায়ী, ওই আবাসন ব্লকে ১৬৫ বাংলাদেশি এবং ভারতীয় এক প্রবাসী বসবাস করতেন। আগুন লাগার সময় কয়েকজন শ্রমিক ফজরের নামাজের জন্য মসজিদে গিয়েছিলেন। এছাড়া অন্যরা কর্তব্যরত ছিলেন। তবে আবাসন ব্লকে অগ্নিকাণ্ডের সময় সবাই উপস্থিত ছিলেন না।

dhakapost
অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত বাংলাদেশিরা এখনও খোলা আকাশের নিচে অবস্থান করছেন

সূত্রের বরাত দিয়ে মালদ্বীপের স্থানীয় সংবাদমাধ্যম মিহারু বলেছে, আগুন ছড়িয়ে পড়ার আগেই আবাসন ব্লকের অনেক বাসিন্দাকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছিল। তবে তাদের মধ্যে কেউ কেউ সংজ্ঞা হারিয়ে ফেলেছিলেন। সৌভাগ্যবশত এই প্রবাসী কর্মীদের কেউ আহত হননি।

মালের সিটি মেয়র মোহাম্মদ মুইজ্জু বলেছেন, অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত শ্রমিকদের অস্থায়ী আবাসনের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। তবে এই বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি।

তিনি বলেন, আমরা প্রবাসী কর্মীদের আবাসনের ব্যবস্থা করার চেষ্টা করছি। তবে এই মুহূর্তে তাদের সমন্বয় করতে পারছি না। কারণ সেখানে বিপুলসংখ্যক প্রবাসী কর্মী রয়েছেন। আমরা কিছুটা উদ্বিগ্ন। জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ প্রবাসীদের রাখার জন্য একটি জায়গা নির্ধারণের ব্যবস্থা করছে।

মালের এই মেয়র বলেন, এই মুহূর্তে তাদের প্রয়োজনীয় খাবার ও পানি সরবরাহ করাই আমাদের লক্ষ্য। রেড ক্রিসেন্ট ও পৌর কর্তৃপক্ষের বিভিন্ন সংস্থা তাদের অস্থায়ী আশ্রয়কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়ার কাজে সহযোগিতা করছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

মালদ্বীপে ভয়াবহ আগুন, আশ্রয়হীন ১৬৫ বাংলাদেশি

আপডেট সময় : ০২:৫৮:০০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১০ জানুয়ারী ২০২৩

মালদ্বীপের রাজধানী মালের একটি নিলাম মার্কেটে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। অগ্নিকাণ্ডের এই ঘটনায় মার্কেটের শ্রমিকদের একটি আবাসন ব্লক সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে। এতে অন্তত ১৬৫ বাংলাদেশি প্রবাসী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে অনেকেই অগ্নিকাণ্ডের সময় ধোঁয়ার কারণে সংজ্ঞা হারিয়ে ফেলেন।

মঙ্গলবার সকালের দিকে মালের সিটি কাউন্সিল আগুনে প্রবাসী শ্রমিকদের ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার এই তথ্য জানিয়েছে। দেশটির সংবাদমাধ্যম দ্য এডিশন বলছে, ভোর সাড়ে ৫টার দিকে শহরের দক্ষিণ পাশের নিলাম মার্কেট মালে নিলান ফিহারায় আগুন ছড়িয়ে পড়ে। অগ্নিকাণ্ডে সিটি কাউন্সিলের প্রবাসী কর্মচারীদের আবাসন ব্লক সম্পূর্ণ পুড়ে গেছে।

সিটি কাউন্সিলের তথ্য অনুযায়ী, ওই আবাসন ব্লকে ১৬৫ বাংলাদেশি এবং ভারতীয় এক প্রবাসী বসবাস করতেন। আগুন লাগার সময় কয়েকজন শ্রমিক ফজরের নামাজের জন্য মসজিদে গিয়েছিলেন। এছাড়া অন্যরা কর্তব্যরত ছিলেন। তবে আবাসন ব্লকে অগ্নিকাণ্ডের সময় সবাই উপস্থিত ছিলেন না।

dhakapost
অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত বাংলাদেশিরা এখনও খোলা আকাশের নিচে অবস্থান করছেন

সূত্রের বরাত দিয়ে মালদ্বীপের স্থানীয় সংবাদমাধ্যম মিহারু বলেছে, আগুন ছড়িয়ে পড়ার আগেই আবাসন ব্লকের অনেক বাসিন্দাকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছিল। তবে তাদের মধ্যে কেউ কেউ সংজ্ঞা হারিয়ে ফেলেছিলেন। সৌভাগ্যবশত এই প্রবাসী কর্মীদের কেউ আহত হননি।

মালের সিটি মেয়র মোহাম্মদ মুইজ্জু বলেছেন, অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত শ্রমিকদের অস্থায়ী আবাসনের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। তবে এই বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি।

তিনি বলেন, আমরা প্রবাসী কর্মীদের আবাসনের ব্যবস্থা করার চেষ্টা করছি। তবে এই মুহূর্তে তাদের সমন্বয় করতে পারছি না। কারণ সেখানে বিপুলসংখ্যক প্রবাসী কর্মী রয়েছেন। আমরা কিছুটা উদ্বিগ্ন। জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ প্রবাসীদের রাখার জন্য একটি জায়গা নির্ধারণের ব্যবস্থা করছে।

মালের এই মেয়র বলেন, এই মুহূর্তে তাদের প্রয়োজনীয় খাবার ও পানি সরবরাহ করাই আমাদের লক্ষ্য। রেড ক্রিসেন্ট ও পৌর কর্তৃপক্ষের বিভিন্ন সংস্থা তাদের অস্থায়ী আশ্রয়কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়ার কাজে সহযোগিতা করছে।