ঢাকা ০১:৪৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ইরান সফরে যাচ্ছেন কাতার আমির

  • আপডেট সময় : ০২:৩৯:২৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১১ মে ২০২২
  • / 240
প্রবাসী কণ্ঠ অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আল সানি ইরান সফরে যাচ্ছেন। বৃহস্পতিবার তার এ সফরে যাওয়ার কথা রয়েছে বলে ইরানের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থার বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম রয়টার্স এ খবর জানিয়েছে।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, ইরান ২০১৫ সালের পরমাণু চুক্তি পুনরুজ্জীবিত করা এবং ইউরোপের জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চিতের প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এই প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে ইরানের পর জার্মানি, যুক্তরাজ্য এবং অন্যান্য ইউরোপীয় দেশগুলো সফর করবেন কাতারের আমির।

২০১৭ সালের মাঝামাঝি সময়ে সন্ত্রাসে মদদের অভিযোগ এনে কাতারের সঙ্গে কূটনৈতিক, বাণিজ্য সম্পর্ক ছিন্ন করাসহ ভ্রমণও বন্ধ করেছিল সৌদি আরবসহ বাহরাইন, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও মিসর। তবে সন্ত্রাসের অভিযোগ অস্বীকার করে এসেছে কাতার।

ওই সময় অবরোধ প্রত্যাহারের জন্য ১৩টি শর্ত জুড়ে দেওয়া হল কাতারের সামনে।  তুরস্ক এবং ইরানের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করা, কাতার থেকে তুরস্কের সামরিক ঘাঁটি তুলে নেওয়া এবং আলজাজিরা টেলিভিশন বন্ধ করা ছিল তাদের মধ্যে অন্যতম।

তবে সৌদি জোটের দাবি প্রত্যাখ্যান করে উল্টো তুরস্ক ও ইরানের সঙ্গে নিয়মিত সম্পর্ক রক্ষা করেছে কাতার।  ২০২১ সালের শুরুর দিকে অবরোধ প্রত্যাহার করে কাতারের সঙ্গে দ্বন্দ্ব মেটানোর চুক্তি করে সৌদি আরবসহ উপসাগরীয় দেশগুলো।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

ইরান সফরে যাচ্ছেন কাতার আমির

আপডেট সময় : ০২:৩৯:২৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১১ মে ২০২২

কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আল সানি ইরান সফরে যাচ্ছেন। বৃহস্পতিবার তার এ সফরে যাওয়ার কথা রয়েছে বলে ইরানের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থার বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম রয়টার্স এ খবর জানিয়েছে।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, ইরান ২০১৫ সালের পরমাণু চুক্তি পুনরুজ্জীবিত করা এবং ইউরোপের জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চিতের প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এই প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে ইরানের পর জার্মানি, যুক্তরাজ্য এবং অন্যান্য ইউরোপীয় দেশগুলো সফর করবেন কাতারের আমির।

২০১৭ সালের মাঝামাঝি সময়ে সন্ত্রাসে মদদের অভিযোগ এনে কাতারের সঙ্গে কূটনৈতিক, বাণিজ্য সম্পর্ক ছিন্ন করাসহ ভ্রমণও বন্ধ করেছিল সৌদি আরবসহ বাহরাইন, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও মিসর। তবে সন্ত্রাসের অভিযোগ অস্বীকার করে এসেছে কাতার।

ওই সময় অবরোধ প্রত্যাহারের জন্য ১৩টি শর্ত জুড়ে দেওয়া হল কাতারের সামনে।  তুরস্ক এবং ইরানের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করা, কাতার থেকে তুরস্কের সামরিক ঘাঁটি তুলে নেওয়া এবং আলজাজিরা টেলিভিশন বন্ধ করা ছিল তাদের মধ্যে অন্যতম।

তবে সৌদি জোটের দাবি প্রত্যাখ্যান করে উল্টো তুরস্ক ও ইরানের সঙ্গে নিয়মিত সম্পর্ক রক্ষা করেছে কাতার।  ২০২১ সালের শুরুর দিকে অবরোধ প্রত্যাহার করে কাতারের সঙ্গে দ্বন্দ্ব মেটানোর চুক্তি করে সৌদি আরবসহ উপসাগরীয় দেশগুলো।