শান্তির সংস্কৃতি প্রচার করছে বাংলাদেশ: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  • আপডেট সময় : ০৪:৫২:২৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২২
  • / 378
প্রবাসী কণ্ঠ অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ঢাকা: পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, বাংলাদেশ একটি ‘শান্তি সংস্কৃতি’ প্রচার করছে যা আসলে বঙ্গবন্ধুর শান্তির দর্শন। বঙ্গবন্ধু মানুষের জীবন ও মানবিক মর্যাদার জন্য একটি স্বাধীন স্থান চেয়েছিলেন।

এমিরেটস সেন্টার ফর স্ট্র্যাটেজিক অ্যান্ড সিকিউরিটি স্টাডিজ আয়োজিত অনুষ্ঠানে বৈশ্বিক শান্তি ও বিশ্ব নিরাপত্তা বিষয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দর্শন তুলে ধরেন ড. মোমেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শান্তি, ন্যায়বিচার এবং মানবতার জন্য একজন শক্তিশালী প্রচারক ছিলেন। বঙ্গবন্ধু আইনের শাসনকে প্রাধান্য দিয়েছিলেন। এমনকি তার দৃষ্টিভঙ্গির বিরোধিতার জন্য, পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে বঙ্গবন্ধু কখনো সহিংসতা বা বিদ্বেষকে বেছে নেননি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী উল্লেখ করেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশ্ব ও বিশ্ব শান্তির স্বপ্ন বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের মধ্যেই নিহিত। ২০১১ সালে ৬৬তম জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের সময়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বকে গণতন্ত্র এবং জনগণের ক্ষমতায়নের জন্য ছয় দফার শান্তিবাদী উন্নয়ন মডেল উপহার দেন। তার প্রস্তাবিত মডেলের উল্লেখজনক বিষয় হলো- দারিদ্র্য ও ক্ষুধা দূরীকরণ, বৈষম্য হ্রাস এবং লাভজনক কর্মসংস্থান, বঞ্চনা থেকে মুক্তি, শিক্ষা ও প্রযুক্তির উন্নয়ন, সন্ত্রাস নির্মূল ইত্যাদি।

উল্লেখ্য, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন বর্তমানে সংযুক্ত আরব আমিরাত সফরে রয়েছেন। সেখানে শুক্রবার লুলু গ্রুপের চেয়ারম্যান ইউসুফ আলী পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। সাক্ষাৎকালে উভয়পক্ষই সংযুক্ত আরব আমিরাতের মধ্যে দিয়ে উপসাগরীয়, যুক্তরাজ্য এবং ইইউ অঞ্চলে বাংলাদেশের উৎপাদনখাতের সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

শান্তির সংস্কৃতি প্রচার করছে বাংলাদেশ: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

আপডেট সময় : ০৪:৫২:২৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২২

ঢাকা: পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, বাংলাদেশ একটি ‘শান্তি সংস্কৃতি’ প্রচার করছে যা আসলে বঙ্গবন্ধুর শান্তির দর্শন। বঙ্গবন্ধু মানুষের জীবন ও মানবিক মর্যাদার জন্য একটি স্বাধীন স্থান চেয়েছিলেন।

এমিরেটস সেন্টার ফর স্ট্র্যাটেজিক অ্যান্ড সিকিউরিটি স্টাডিজ আয়োজিত অনুষ্ঠানে বৈশ্বিক শান্তি ও বিশ্ব নিরাপত্তা বিষয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দর্শন তুলে ধরেন ড. মোমেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শান্তি, ন্যায়বিচার এবং মানবতার জন্য একজন শক্তিশালী প্রচারক ছিলেন। বঙ্গবন্ধু আইনের শাসনকে প্রাধান্য দিয়েছিলেন। এমনকি তার দৃষ্টিভঙ্গির বিরোধিতার জন্য, পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে বঙ্গবন্ধু কখনো সহিংসতা বা বিদ্বেষকে বেছে নেননি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী উল্লেখ করেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশ্ব ও বিশ্ব শান্তির স্বপ্ন বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের মধ্যেই নিহিত। ২০১১ সালে ৬৬তম জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের সময়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বকে গণতন্ত্র এবং জনগণের ক্ষমতায়নের জন্য ছয় দফার শান্তিবাদী উন্নয়ন মডেল উপহার দেন। তার প্রস্তাবিত মডেলের উল্লেখজনক বিষয় হলো- দারিদ্র্য ও ক্ষুধা দূরীকরণ, বৈষম্য হ্রাস এবং লাভজনক কর্মসংস্থান, বঞ্চনা থেকে মুক্তি, শিক্ষা ও প্রযুক্তির উন্নয়ন, সন্ত্রাস নির্মূল ইত্যাদি।

উল্লেখ্য, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন বর্তমানে সংযুক্ত আরব আমিরাত সফরে রয়েছেন। সেখানে শুক্রবার লুলু গ্রুপের চেয়ারম্যান ইউসুফ আলী পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। সাক্ষাৎকালে উভয়পক্ষই সংযুক্ত আরব আমিরাতের মধ্যে দিয়ে উপসাগরীয়, যুক্তরাজ্য এবং ইইউ অঞ্চলে বাংলাদেশের উৎপাদনখাতের সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা করেন।