ঢাকা ০৩:৪৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ০২ জুন ২০২৩, ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বছরে চার লাখ দক্ষ শ্রমিক নেবে জার্মানি

nurislam nahid
  • আপডেট সময় : ০৩:৫২:২১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জানুয়ারী ২০২২
  • / 347
প্রবাসী কণ্ঠ অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

প্রতিবছর বিদেশ থেকে চার লাখ দক্ষ শ্রমিক নিতে চায় জার্মানি। দেশটির গুরুত্বপূর্ণ খাতগুলোতে শ্রমিক সংকট ও জনমিতিক ভারসাম্য মোকাবিলায় এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে নতুন জোট সরকার। মহামারি ধকল কাটিয়ে উঠতে জনবল সমস্যার সামাল দিতে এ পন্থা নিয়েছে জার্মানি।

এক সাক্ষাৎকারে ক্ষমতাসীন জোট শরিক ফ্রি ডেমোক্র্যাটস (এফডিপি) পার্টির সংসদীয় নেতা ক্রিস্টিয়ান ডুয়ের বলেন, বর্তমানে দক্ষ শ্রমিকদের অভাব মারাত্মক রূপ নিয়েছে। এতে আমাদের অর্থনীতির গতি নাটকীয়ভাবে কমে গেছে।

তিনি বলেন, আধুনিক অভিবাসন নীতি তামিল করে আমরা বয়স্ক জনবল-সমস্যার সুরাহা টানতে পারি। যত দ্রুত সম্ভব বিদেশ থেকে চার লাখ দক্ষ শ্রমিক নিয়ে আসতে হবে।

জার্মান অর্থনৈতিক ইনস্টিটিউটের হিসাবে, চলতি বছরে শ্রমিক সংখ্যা তিন লাখের বেশি কমে যাবে। শ্রমবাজারে তরুণরা যতটা না প্রবেশ করছেন, তার চেয়ে বেশি বয়স্ক লোক অবসরে যাওয়ায় এই সংকট দেখা দিয়েছে।

২০২৯ সাল নাগাদ শ্রমবাজারে নতুন প্রবেশ ও অবসরে যাওয়ার সংখ্যার মধ্যে ব্যবধান বেড়ে দাঁড়াবে সাড়ে ছয় লাখ। পরের বছর ২০৩০ সালে কর্মঠ জনবলের ঘাটতি দাঁড়াবে পঞ্চাশ লাখে।

মহামারি হওয়ার পরেও গত বছরে কর্মস্থলে জার্মানদের সংখ্যা বেড়েছে প্রায় সাড়ে চার কোটি। কয়েক দশকে ইউরোপীয় দেশটিতে জন্মহার কমে যাওয়া ও অসম অভিবাসনের কারণে শ্রমশক্তিতে ধস নেমেছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

বছরে চার লাখ দক্ষ শ্রমিক নেবে জার্মানি

আপডেট সময় : ০৩:৫২:২১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জানুয়ারী ২০২২

প্রতিবছর বিদেশ থেকে চার লাখ দক্ষ শ্রমিক নিতে চায় জার্মানি। দেশটির গুরুত্বপূর্ণ খাতগুলোতে শ্রমিক সংকট ও জনমিতিক ভারসাম্য মোকাবিলায় এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে নতুন জোট সরকার। মহামারি ধকল কাটিয়ে উঠতে জনবল সমস্যার সামাল দিতে এ পন্থা নিয়েছে জার্মানি।

এক সাক্ষাৎকারে ক্ষমতাসীন জোট শরিক ফ্রি ডেমোক্র্যাটস (এফডিপি) পার্টির সংসদীয় নেতা ক্রিস্টিয়ান ডুয়ের বলেন, বর্তমানে দক্ষ শ্রমিকদের অভাব মারাত্মক রূপ নিয়েছে। এতে আমাদের অর্থনীতির গতি নাটকীয়ভাবে কমে গেছে।

তিনি বলেন, আধুনিক অভিবাসন নীতি তামিল করে আমরা বয়স্ক জনবল-সমস্যার সুরাহা টানতে পারি। যত দ্রুত সম্ভব বিদেশ থেকে চার লাখ দক্ষ শ্রমিক নিয়ে আসতে হবে।

জার্মান অর্থনৈতিক ইনস্টিটিউটের হিসাবে, চলতি বছরে শ্রমিক সংখ্যা তিন লাখের বেশি কমে যাবে। শ্রমবাজারে তরুণরা যতটা না প্রবেশ করছেন, তার চেয়ে বেশি বয়স্ক লোক অবসরে যাওয়ায় এই সংকট দেখা দিয়েছে।

২০২৯ সাল নাগাদ শ্রমবাজারে নতুন প্রবেশ ও অবসরে যাওয়ার সংখ্যার মধ্যে ব্যবধান বেড়ে দাঁড়াবে সাড়ে ছয় লাখ। পরের বছর ২০৩০ সালে কর্মঠ জনবলের ঘাটতি দাঁড়াবে পঞ্চাশ লাখে।

মহামারি হওয়ার পরেও গত বছরে কর্মস্থলে জার্মানদের সংখ্যা বেড়েছে প্রায় সাড়ে চার কোটি। কয়েক দশকে ইউরোপীয় দেশটিতে জন্মহার কমে যাওয়া ও অসম অভিবাসনের কারণে শ্রমশক্তিতে ধস নেমেছে।