দক্ষ জনশক্তি গঠনে কারিগরী শিক্ষাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিতে হবে : প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী

  • আপডেট সময় : ১১:০৭:০৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • / 130
প্রবাসী কণ্ঠ অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ এমপি বলেছেন, বর্তমান বাস্তবতায় দেশ ও বিদেশে কারিগরী ও কর্মবান্ধব শিক্ষার কোন বিকল্প নেই। তাই দক্ষ জনশক্তি গঠনে কারিগরী শিক্ষাকে এ মুহুর্তে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিতে হবে।
আজ বুধবার দুপুরে সিলেট নগরীর পূর্ব শাহী ঈদগাহ এলাকায় অবস্থিত নবপ্রতিষ্ঠিত আরটিএম আল-কবির টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটি অডিটোরিয়ামে কারিগরী দক্ষতা উন্নয়নের লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠিত ‘বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ইনক্লুসিভ স্কিল ডেভেলপমেন্ট’ এর শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ মন্তব্য করেন।
এসময় মন্ত্রী আরও বলেন, বিদেশে চাকুরীর জন্য উচ্চ শিক্ষা এসএসসি, এইচএসসি এগুলো দেখেনা, তারা দেখে কাজের যোগ্যতা বা দক্ষতা কতটুকু আছে। মন্ত্রী বলেন, সেক্ষেত্রে আমরা বাংলাদেশীরা অনেক পিছিয়ে রয়েছি। তিনি বলেন, বিদেশের বাজারে জনশক্তির অনেক চাহিদা রয়েছে, কিন্তু তাদের চাহিদা অনুযায়ী আমরা জনশক্তি সরবরাহ করতে পারছিনা। তাই এবিষয়ে সরকারের পাশাপাশি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকেও সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে আমাদের মানুষদেরকে কর্মমুখী শিক্ষা দিয়ে প্রস্তুত করতে হবে।
তিনি বিদেশগামীদেরকে দেশ থেকে খালি হাতে না যেয়ে যেকোনভাবে নিজেকে প্রশিক্ষিত করে বা বিদেশের চাহিদামতো একটি কোর্স সম্পন্ন করে যেতে আহবান জানান। তখন বিদেশের মাঠিতে যারা যাবেন তারাও আর্থিকভাবে যেমনি লাভবান হবে তেমনি দেশও সম্মানিত হবে।
তিনি বলেন, জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা ও তাঁর সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনা ঘোষিত স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তুলতে কারিগরী জ্ঞান সম্পন্ন জনগোষ্ঠী গড়ে তুলতে সরকার নানামুখী পদক্ষেপ চালিয়ে যাচ্ছে। দক্ষ জনগোষ্ঠী গড়তে শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার বদ্ধপরিকর।
মন্ত্রী প্রবাসী অধ্যুষিত এলাকা সিলেটে দক্ষ মানব সম্পদ উন্নয়নে কারিগরী দক্ষ জনশক্তি গড়ে তোলার ক্ষেত্রে আরটিএম আল-কবির টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটির উদ্যোগের আন্তরিক প্রশংশা করেন। তিনি এধরনের শুভ উদ্যোগের জন্য ইউনিভারসিটির প্রতিষ্ঠাতা ও বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান ড. আহমদ আল কবিরকে ধন্যবাদ জানান। আরটিএম আল-কবির টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা নিজেদের জ্ঞান, প্রজ্ঞা ও মেধা দিয়ে একসময়ে বিশ্বের সর্বত্র বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর (ভিসি) প্রফেসর ড. আবু নাসের এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আরটিএম আল-কবির টেকনিক্যাল ইউনিভারসিটির প্রতিষ্ঠাতা ও বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা ড. আহমদ আল কবির। বাংলাদেশ শিল্ল কারিগরী সহায়তা কেন্দ্র (বিটাক) এর মহা পরিচালক আনোয়ার হোসেন চৌধুরী। অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সিলেটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মোবারক হোসেন।
স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইন্সটিটিউটের পরিচালক ডাঃ এস এম ফরিদুল ইসলাম লতিফী। বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম, বিভাগসমূহ, গবেষণা কেন্দ্র ও নব প্রতিষ্ঠিত ইন্সটিটিউটের নানা কর্মসূচীর কথা তুলে ধরেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অবসরপ্রাপ্ত সাবেক যুগ্ম সচিব সৈয়দ জগলুল পাশা।
আরটিএম আল-কবির টেকনিক্যাল ইউনিভারসিটির ইংলিশ প্রোগ্রামের হেড সহকারী অধ্যাপক নুসরাত রিকজা ও শিক্ষার্থী মুনজারিল ইসলামের সঞ্চালনায় এ অনুষ্ঠানে সিলেটের সকল শ্রেণীপেশার প্রতিনিধি সহ সমাজের বিশিষ্টজন, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

দক্ষ জনশক্তি গঠনে কারিগরী শিক্ষাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিতে হবে : প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী

আপডেট সময় : ১১:০৭:০৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ এমপি বলেছেন, বর্তমান বাস্তবতায় দেশ ও বিদেশে কারিগরী ও কর্মবান্ধব শিক্ষার কোন বিকল্প নেই। তাই দক্ষ জনশক্তি গঠনে কারিগরী শিক্ষাকে এ মুহুর্তে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিতে হবে।
আজ বুধবার দুপুরে সিলেট নগরীর পূর্ব শাহী ঈদগাহ এলাকায় অবস্থিত নবপ্রতিষ্ঠিত আরটিএম আল-কবির টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটি অডিটোরিয়ামে কারিগরী দক্ষতা উন্নয়নের লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠিত ‘বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ইনক্লুসিভ স্কিল ডেভেলপমেন্ট’ এর শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ মন্তব্য করেন।
এসময় মন্ত্রী আরও বলেন, বিদেশে চাকুরীর জন্য উচ্চ শিক্ষা এসএসসি, এইচএসসি এগুলো দেখেনা, তারা দেখে কাজের যোগ্যতা বা দক্ষতা কতটুকু আছে। মন্ত্রী বলেন, সেক্ষেত্রে আমরা বাংলাদেশীরা অনেক পিছিয়ে রয়েছি। তিনি বলেন, বিদেশের বাজারে জনশক্তির অনেক চাহিদা রয়েছে, কিন্তু তাদের চাহিদা অনুযায়ী আমরা জনশক্তি সরবরাহ করতে পারছিনা। তাই এবিষয়ে সরকারের পাশাপাশি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকেও সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে আমাদের মানুষদেরকে কর্মমুখী শিক্ষা দিয়ে প্রস্তুত করতে হবে।
তিনি বিদেশগামীদেরকে দেশ থেকে খালি হাতে না যেয়ে যেকোনভাবে নিজেকে প্রশিক্ষিত করে বা বিদেশের চাহিদামতো একটি কোর্স সম্পন্ন করে যেতে আহবান জানান। তখন বিদেশের মাঠিতে যারা যাবেন তারাও আর্থিকভাবে যেমনি লাভবান হবে তেমনি দেশও সম্মানিত হবে।
তিনি বলেন, জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা ও তাঁর সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনা ঘোষিত স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তুলতে কারিগরী জ্ঞান সম্পন্ন জনগোষ্ঠী গড়ে তুলতে সরকার নানামুখী পদক্ষেপ চালিয়ে যাচ্ছে। দক্ষ জনগোষ্ঠী গড়তে শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার বদ্ধপরিকর।
মন্ত্রী প্রবাসী অধ্যুষিত এলাকা সিলেটে দক্ষ মানব সম্পদ উন্নয়নে কারিগরী দক্ষ জনশক্তি গড়ে তোলার ক্ষেত্রে আরটিএম আল-কবির টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটির উদ্যোগের আন্তরিক প্রশংশা করেন। তিনি এধরনের শুভ উদ্যোগের জন্য ইউনিভারসিটির প্রতিষ্ঠাতা ও বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান ড. আহমদ আল কবিরকে ধন্যবাদ জানান। আরটিএম আল-কবির টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা নিজেদের জ্ঞান, প্রজ্ঞা ও মেধা দিয়ে একসময়ে বিশ্বের সর্বত্র বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর (ভিসি) প্রফেসর ড. আবু নাসের এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আরটিএম আল-কবির টেকনিক্যাল ইউনিভারসিটির প্রতিষ্ঠাতা ও বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা ড. আহমদ আল কবির। বাংলাদেশ শিল্ল কারিগরী সহায়তা কেন্দ্র (বিটাক) এর মহা পরিচালক আনোয়ার হোসেন চৌধুরী। অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সিলেটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মোবারক হোসেন।
স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইন্সটিটিউটের পরিচালক ডাঃ এস এম ফরিদুল ইসলাম লতিফী। বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম, বিভাগসমূহ, গবেষণা কেন্দ্র ও নব প্রতিষ্ঠিত ইন্সটিটিউটের নানা কর্মসূচীর কথা তুলে ধরেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অবসরপ্রাপ্ত সাবেক যুগ্ম সচিব সৈয়দ জগলুল পাশা।
আরটিএম আল-কবির টেকনিক্যাল ইউনিভারসিটির ইংলিশ প্রোগ্রামের হেড সহকারী অধ্যাপক নুসরাত রিকজা ও শিক্ষার্থী মুনজারিল ইসলামের সঞ্চালনায় এ অনুষ্ঠানে সিলেটের সকল শ্রেণীপেশার প্রতিনিধি সহ সমাজের বিশিষ্টজন, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।