জার্মানির আকাশে ন্যাটোর সবচেয়ে বড় মহড়া

  • আপডেট সময় : ০৯:৪৩:৪৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৩ জুন ২০২৩
  • / 62
প্রবাসী কণ্ঠ অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

জার্মানির আকাশে ন্যাটোর ইতিহাসে সবচেয়ে বড় আকাশ প্রতিরক্ষা মহড়া শুরু হয়েছে। সোমবার (১২ জুন) থেকে শুরু হওয়া এই মহড়া চলবে ২৩ জুন পর্যন্ত।

১৯৪৯ সালে ন্যাটো গঠনের পর ‘এয়ার ডিফেন্ডার ২৩’ নামের এই মহড়াই হতে যাচ্ছে সামরিক জোটটির সবচেয়ে বড় আকাশ প্রতিরক্ষা মহড়া। এর জন্য চার বছর ধরে প্রস্তুতি নিচ্ছে জার্মানি।

মহড়ায় ২৫ দেশের ২৫০টি বিমান অংশ নেবে। এর মধ্যে মার্কিন বিমানবাহিনীর অত্যাধুনিক এফ-৩৫ স্টিলথ কমব্যাট এয়ারক্রাফটসহ ১০০টি বিমান রয়েছে। ন্যাটোর সবচেয়ে আধুনিক যুদ্ধবিমান হচ্ছে এফ-৩৫।

মহড়ায় ন্যাটো দেশগুলোর ১০ হাজারের বেশি সৈন্য অংশ নিচ্ছেন।

মহড়ার একটি অংশ হচ্ছে এয়ারফিল্ড খালি করা। ২০২১ সালে আফগানিস্তানে তালেবান ক্ষমতা দখলের পর কাবুল বিমানবন্দরে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। এমন পরিস্থিতিতে কী করণীয়, তা এই মহড়ায় অনুশীলন করা হবে।

এছাড়া আকাশ থেকে স্থলে থাকা সেনাদের সহায়তা করা, শত্রুর ফাইটার জেটের সঙ্গে আকাশে যুদ্ধ করা, ফাইটার বোম্বার দিয়ে মাঝারি পাল্লার মিসাইল প্রতিহত করা ইত্যাদি মহড়াও অনুষ্ঠিত হবে। শত্রুর সাবমেরিন বা জাহাজ প্রতিহত করার অনুশীলনও করবেন সেনারা।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

জার্মানির আকাশে ন্যাটোর সবচেয়ে বড় মহড়া

আপডেট সময় : ০৯:৪৩:৪৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৩ জুন ২০২৩

জার্মানির আকাশে ন্যাটোর ইতিহাসে সবচেয়ে বড় আকাশ প্রতিরক্ষা মহড়া শুরু হয়েছে। সোমবার (১২ জুন) থেকে শুরু হওয়া এই মহড়া চলবে ২৩ জুন পর্যন্ত।

১৯৪৯ সালে ন্যাটো গঠনের পর ‘এয়ার ডিফেন্ডার ২৩’ নামের এই মহড়াই হতে যাচ্ছে সামরিক জোটটির সবচেয়ে বড় আকাশ প্রতিরক্ষা মহড়া। এর জন্য চার বছর ধরে প্রস্তুতি নিচ্ছে জার্মানি।

মহড়ায় ২৫ দেশের ২৫০টি বিমান অংশ নেবে। এর মধ্যে মার্কিন বিমানবাহিনীর অত্যাধুনিক এফ-৩৫ স্টিলথ কমব্যাট এয়ারক্রাফটসহ ১০০টি বিমান রয়েছে। ন্যাটোর সবচেয়ে আধুনিক যুদ্ধবিমান হচ্ছে এফ-৩৫।

মহড়ায় ন্যাটো দেশগুলোর ১০ হাজারের বেশি সৈন্য অংশ নিচ্ছেন।

মহড়ার একটি অংশ হচ্ছে এয়ারফিল্ড খালি করা। ২০২১ সালে আফগানিস্তানে তালেবান ক্ষমতা দখলের পর কাবুল বিমানবন্দরে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। এমন পরিস্থিতিতে কী করণীয়, তা এই মহড়ায় অনুশীলন করা হবে।

এছাড়া আকাশ থেকে স্থলে থাকা সেনাদের সহায়তা করা, শত্রুর ফাইটার জেটের সঙ্গে আকাশে যুদ্ধ করা, ফাইটার বোম্বার দিয়ে মাঝারি পাল্লার মিসাইল প্রতিহত করা ইত্যাদি মহড়াও অনুষ্ঠিত হবে। শত্রুর সাবমেরিন বা জাহাজ প্রতিহত করার অনুশীলনও করবেন সেনারা।