ঢাকা ০১:৩৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

১৪ মে থেকে কুয়েত প্রবাসীদের জন্য ই-পাসপোর্ট সেবা

  • আপডেট সময় : ০৪:১৮:৫৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ মে ২০২৩
  • / 88
প্রবাসী কণ্ঠ অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

কুয়েত প্রবাসীদের বহুল আকাঙ্ক্ষিত ই-পাসপোর্ট সেবা আগামী ১৪ মে চালু হতে যাচ্ছে। এরই মধ্যে শেষ হয়েছে পাসপোর্ট কার্যক্রমের প্রস্তুতি।

সোমবার দূতাবাসের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ থেকে এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হয়, এনআইডি তথা জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে ই-পাসপোর্টের জন্য আবেদন করতে হবে। জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকলে অনলাইন জন্মনিবন্ধনের ইংরেজি সনদ দেখিয়ে আবেদন করা যাবে। তবে এক্ষেত্রে কোনো কাগজপত্র সত্যায়িত করা লাগবে না।

আবেদন করতে হবে অনলাইনের মাধ্যমে। www.epassport.gov.bd এই লিংকে গিয়ে আবেদন করা যাবে। অপ্রাপ্তবয়স্ক (১৮ বছরের কম) আবেদনকারীর জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকল তার পিতা-মাতার জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর উল্লেখ করতে হবে। পাসপোর্ট রি-ইস্যুর ক্ষেত্রে মূল পাসপোর্ট দেখাতে হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ছাত্র, ড্রাইভার ও শ্রমিকদের ই-পাসপোর্ট তৈরিতে খরচ ৫ বছর মেয়াদি হলে ৯ দশমিক ৫ দিনার। ১০ বছর মেয়াদি হলে ১৫ দশমিক ৫ দিনার। তবে জরুরিভাবে করলে ৫ বছর মেয়াদি ১৪ দিনার, ১০ বছর মেয়াদি ২৩ দশমিক ৫ দিনার খরচ হবে।

 

অন্য পেশাজীবীদের ক্ষেত্রে ৫ বছর মেয়াদি ই-পাসপোর্ট ৩১ দিনার, ১০ বছর মেয়াদি হলে ৩৮ দশমিক ৫ দিনার। তবে জরুরিভাবে করলে ৫ বছর মেয়াদির জন্য খরচ হবে ৪৬ দশমিক ৫ দিনার এবং ১০ বছর মেয়াদি ৫৪ দিনার।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

১৪ মে থেকে কুয়েত প্রবাসীদের জন্য ই-পাসপোর্ট সেবা

আপডেট সময় : ০৪:১৮:৫৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ মে ২০২৩

কুয়েত প্রবাসীদের বহুল আকাঙ্ক্ষিত ই-পাসপোর্ট সেবা আগামী ১৪ মে চালু হতে যাচ্ছে। এরই মধ্যে শেষ হয়েছে পাসপোর্ট কার্যক্রমের প্রস্তুতি।

সোমবার দূতাবাসের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ থেকে এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হয়, এনআইডি তথা জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে ই-পাসপোর্টের জন্য আবেদন করতে হবে। জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকলে অনলাইন জন্মনিবন্ধনের ইংরেজি সনদ দেখিয়ে আবেদন করা যাবে। তবে এক্ষেত্রে কোনো কাগজপত্র সত্যায়িত করা লাগবে না।

আবেদন করতে হবে অনলাইনের মাধ্যমে। www.epassport.gov.bd এই লিংকে গিয়ে আবেদন করা যাবে। অপ্রাপ্তবয়স্ক (১৮ বছরের কম) আবেদনকারীর জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকল তার পিতা-মাতার জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর উল্লেখ করতে হবে। পাসপোর্ট রি-ইস্যুর ক্ষেত্রে মূল পাসপোর্ট দেখাতে হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ছাত্র, ড্রাইভার ও শ্রমিকদের ই-পাসপোর্ট তৈরিতে খরচ ৫ বছর মেয়াদি হলে ৯ দশমিক ৫ দিনার। ১০ বছর মেয়াদি হলে ১৫ দশমিক ৫ দিনার। তবে জরুরিভাবে করলে ৫ বছর মেয়াদি ১৪ দিনার, ১০ বছর মেয়াদি ২৩ দশমিক ৫ দিনার খরচ হবে।

 

অন্য পেশাজীবীদের ক্ষেত্রে ৫ বছর মেয়াদি ই-পাসপোর্ট ৩১ দিনার, ১০ বছর মেয়াদি হলে ৩৮ দশমিক ৫ দিনার। তবে জরুরিভাবে করলে ৫ বছর মেয়াদির জন্য খরচ হবে ৪৬ দশমিক ৫ দিনার এবং ১০ বছর মেয়াদি ৫৪ দিনার।