ঢাকা ০১:০২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঢাকায় এসেছেন নতুন ব্রিটিশ হাইকমিশনার কুক

  • আপডেট সময় : ০৪:৩৩:৫৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩০ এপ্রিল ২০২৩
  • / 92
প্রবাসী কণ্ঠ অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ঢাকায় এসেছেন নবনিযুক্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার সারাহ কুক। তিনি সাবেক হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটারটন ডিকসনের স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন।

রোববার (৩০ এপ্রিল) ঢাকার ব্রিটিশ হাইকমিশন এক বার্তায় এ তথ্য জানায়।

বার্তায় নতুন হাইকমিশনারের একটি বক্তব্য তুলে ধরা হয়। সেখানে তিনি বলেন, বাংলাদেশে ফিরে আসতে পেরে আমি আনন্দিত এবং গভীরভাবে সম্মানিত। বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্তরাজ্যের শক্তিশালী সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক রয়েছে। দুই দেশ বাণিজ্য, বিনিয়োগ, উন্নয়ন ও নিরাপত্তাসহ বিভিন্ন বিষয়ে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করছে।

সারাহ কুক বলেন, আমি দুই দেশের দীর্ঘ ও বন্ধুত্বপূর্ণ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক জোরদার করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আমি আমাদের দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতা আরও গভীর করার জন্য উন্মুখ।

হাইকমিশনার কুক এর আগে ২০১২-২০১৬ পর্যন্ত বাংলাদেশে যুক্তরাজ্য আন্তর্জাতিক উন্নয়ন বিভাগের (ডিএফআইডি) কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

সম্প্রতি তিনি দেশটির ফরেইন, কমনওয়েলথ ও ডেভেলপমেন্ট অফিসে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া বিভাগের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। এর আগে তিনি তানজানিয়ায় ব্রিটিশ হাইকমিশনার ছিলেন।

কুক ২০০৫ সালে ডিএফআইডি-তে যোগদান করেন। যেখানে তিনি অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ও বিনিয়োগ, দুর্নীতিবিরোধী ও সহায়তার কার্যকারিতা সম্পর্কিত যুক্তরাজ্যের আন্তর্জাতিক উন্নয়ন নীতি নিয়ে কাজ করেন।

যুক্তরাজ্য সিভিল সার্ভিসে যোগ দেওয়ার আগে কুক গায়ানা ও সলোমন দ্বীপপুঞ্জে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করেছেন।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

ঢাকায় এসেছেন নতুন ব্রিটিশ হাইকমিশনার কুক

আপডেট সময় : ০৪:৩৩:৫৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩০ এপ্রিল ২০২৩

ঢাকায় এসেছেন নবনিযুক্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার সারাহ কুক। তিনি সাবেক হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটারটন ডিকসনের স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন।

রোববার (৩০ এপ্রিল) ঢাকার ব্রিটিশ হাইকমিশন এক বার্তায় এ তথ্য জানায়।

বার্তায় নতুন হাইকমিশনারের একটি বক্তব্য তুলে ধরা হয়। সেখানে তিনি বলেন, বাংলাদেশে ফিরে আসতে পেরে আমি আনন্দিত এবং গভীরভাবে সম্মানিত। বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্তরাজ্যের শক্তিশালী সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক রয়েছে। দুই দেশ বাণিজ্য, বিনিয়োগ, উন্নয়ন ও নিরাপত্তাসহ বিভিন্ন বিষয়ে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করছে।

সারাহ কুক বলেন, আমি দুই দেশের দীর্ঘ ও বন্ধুত্বপূর্ণ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক জোরদার করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আমি আমাদের দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতা আরও গভীর করার জন্য উন্মুখ।

হাইকমিশনার কুক এর আগে ২০১২-২০১৬ পর্যন্ত বাংলাদেশে যুক্তরাজ্য আন্তর্জাতিক উন্নয়ন বিভাগের (ডিএফআইডি) কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

সম্প্রতি তিনি দেশটির ফরেইন, কমনওয়েলথ ও ডেভেলপমেন্ট অফিসে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া বিভাগের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। এর আগে তিনি তানজানিয়ায় ব্রিটিশ হাইকমিশনার ছিলেন।

কুক ২০০৫ সালে ডিএফআইডি-তে যোগদান করেন। যেখানে তিনি অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ও বিনিয়োগ, দুর্নীতিবিরোধী ও সহায়তার কার্যকারিতা সম্পর্কিত যুক্তরাজ্যের আন্তর্জাতিক উন্নয়ন নীতি নিয়ে কাজ করেন।

যুক্তরাজ্য সিভিল সার্ভিসে যোগ দেওয়ার আগে কুক গায়ানা ও সলোমন দ্বীপপুঞ্জে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করেছেন।