ঢাকা ০৮:৩৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঘন কুয়াশায় সৈয়দপুরে বিমান ওঠা-নামায় বিঘ্ন

  • আপডেট সময় : ০৬:১৪:০২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৮ জানুয়ারী ২০২৩
  • / 82
প্রবাসী কণ্ঠ অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

উত্তরের জেলা নীলফামারীতে কুয়াশা আর হিমেল হাওয়ায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। হিমেল হাওয়ার পাশাপাশি মৃদু শৈত্যপ্রবাহও বইছে এ জেলায়। কয়েক সপ্তাহ ধরে সন্ধ্যা থেকে পরদিন দুপুর ১২টা পর্যন্ত ঘন কুয়াশায় ঢাকা থাকছে এই জনপদ। কুয়াশার কারণে দিনের বেলাও হেডলাইট জ্বালিয়ে চলাচল করছে যানবাহন। দৃষ্টিসীমা কম থাকায় সৈয়দপুর বিমানবন্দরে বিমান চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে।

রোববার (৮ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ১১টা পর্যন্ত ঘন কুয়াশার কারণে দৃষ্টিসীমা কম থাকায় সৈয়দপুর বিমানবন্দরে কোনো ফ্লাইট অবতরণ কিংবা উড্ডয়ন করতে পারেনি।

বিমানবন্দর আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা গেছে, সকাল ৯টায় বিমানবন্দর এলাকায় দৃষ্টিসীমা ছিল মাত্র ২০০ মিটার। সকাল ‌১০টায় ৪০০ মিটার। যা বেলা ১১টায় বেড়ে দাঁড়ায় ৮০০ মিটারে। সাধারণত ২ হাজার মিটার দৃষ্টিসীমা থাকলে রানওয়েতে বিমান ওঠানামা করতে পারে। তাই কোনো ফ্লাইট অবতরণ করতে পারেনি।

সৈয়দপুর বিমানবন্দরের পর্যবেক্ষক লোকমান হোসেন বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় নীলফামারীতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রার রেকর্ড  করা হয়েছে ১০ দশমিক ০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সাধারণত তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রিতে আসলে শৈত্যপ্রবাহ ধরা হয়। পাশাপাশি হিমেল হাওয়া থাকায় ঠান্ডা বেশি অনুভূত হচ্ছে। এমন অবস্থা আরও কদিন থাকতে পারে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

ঘন কুয়াশায় সৈয়দপুরে বিমান ওঠা-নামায় বিঘ্ন

আপডেট সময় : ০৬:১৪:০২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৮ জানুয়ারী ২০২৩

উত্তরের জেলা নীলফামারীতে কুয়াশা আর হিমেল হাওয়ায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। হিমেল হাওয়ার পাশাপাশি মৃদু শৈত্যপ্রবাহও বইছে এ জেলায়। কয়েক সপ্তাহ ধরে সন্ধ্যা থেকে পরদিন দুপুর ১২টা পর্যন্ত ঘন কুয়াশায় ঢাকা থাকছে এই জনপদ। কুয়াশার কারণে দিনের বেলাও হেডলাইট জ্বালিয়ে চলাচল করছে যানবাহন। দৃষ্টিসীমা কম থাকায় সৈয়দপুর বিমানবন্দরে বিমান চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে।

রোববার (৮ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ১১টা পর্যন্ত ঘন কুয়াশার কারণে দৃষ্টিসীমা কম থাকায় সৈয়দপুর বিমানবন্দরে কোনো ফ্লাইট অবতরণ কিংবা উড্ডয়ন করতে পারেনি।

বিমানবন্দর আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা গেছে, সকাল ৯টায় বিমানবন্দর এলাকায় দৃষ্টিসীমা ছিল মাত্র ২০০ মিটার। সকাল ‌১০টায় ৪০০ মিটার। যা বেলা ১১টায় বেড়ে দাঁড়ায় ৮০০ মিটারে। সাধারণত ২ হাজার মিটার দৃষ্টিসীমা থাকলে রানওয়েতে বিমান ওঠানামা করতে পারে। তাই কোনো ফ্লাইট অবতরণ করতে পারেনি।

সৈয়দপুর বিমানবন্দরের পর্যবেক্ষক লোকমান হোসেন বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় নীলফামারীতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রার রেকর্ড  করা হয়েছে ১০ দশমিক ০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সাধারণত তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রিতে আসলে শৈত্যপ্রবাহ ধরা হয়। পাশাপাশি হিমেল হাওয়া থাকায় ঠান্ডা বেশি অনুভূত হচ্ছে। এমন অবস্থা আরও কদিন থাকতে পারে।