বগি ‘বাতিল’ করে যাত্রী রেখে চলে গেলো ট্রেন

  • আপডেট সময় : ১২:৪০:২১ অপরাহ্ন, সোমবার, ৪ জুলাই ২০২২
  • / 216
প্রবাসী কণ্ঠ অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে একটি বগি এবং শতাধিক যাত্রী রেখে পঞ্চগড়ের উদ্দেশ্যে ছেড়ে গেছে একতা এক্সপ্রেস। সোমবার (৪ জুলাই) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ট্রেনটি স্টেশন ছেড়ে যায়। তবে ট্রেনটি প্লাটফর্ম ছাড়ার কথা ছিল সকাল ১০টা ১০ মিনিটে।

তবে স্টেশন সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ‘ট’ বগিতে আগে থেকেই ত্রুটি ছিল। তাই সেটিকে বাতিল করা হয়। তবে এ তথ্য না জেনেই অনেক যাত্রী ওই বগিতে উঠে পড়েন। তবে অনেকে অন্য বগিতে উঠে যাত্রা করেছেন।

বগি ও যাত্রী রেখে একতা এক্সপ্রেস প্লাটফর্ম ছেড়ে যাওয়ায় ক্ষোভ জানিয়েছেন যাত্রীরা। তাদের অভিযোগ, ওই বগিতে ত্রুটির বিষয়টি রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ যাত্রীদেরকে অবগত করেনি।

যাত্রী আকরাম হোসেন বলেন, ‘ট’ নম্বর বগিতে আমার আসন ছিল। আমার মতো আরও ১০৫ জন যাত্রী ওই বগিতে টিকিট কিনেছিলেন। নির্ধ‌ারিত সময়ে অনেকে আসনে বসেছিলেনও। তবে ছাড়ার সময় ট্রেনটি বগি রেখেই চলে গেছে।

ঈদযাত্রার সময় এমন ঘটনায় তারা চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন বলেও জানান তিনি।

কমলাপুর রেলস্টেশন সংশ্লিষ্টরা জানান, একতা এক্সপ্রেসের ‘ট’ বগিতে আগে থেকেই ত্রুটি ছিল। তাই সেটি বাতিল করা হয় এবং মূল ট্রেনের শেষে রাখা হয়। ফলে অনেক যাত্রী বগি বাতিলের তথ্য না জেনেই সেখানে উঠে পড়েন। অথচ বগি বাতিলের বিষয়টি সকাল ৯টার দিকে যাত্রীদেরকে অবগত করা হয়েছে। তবে আগে যারা বিষয়টি জেনেছেন, তারা অনেকে অন্য বগিতে উঠেছেন।

বগি রেখে ট্রেন চলে যাওয়ার বিষয়ে জানতে কমলাপুর রেলস্টেশনের ম্যানেজার মাসুদ সারওয়ারের মুঠোফোনে একাধিকবার কল দিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি।

একতা এক্সপ্রেস ট্রেনটি রাজধানী কমলাপুর স্টেশন থেকে পঞ্চগড়ের বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম রেলওয়ে স্টেশন (পঞ্চগড় রেলওয়ে স্টেশন) পর্যন্ত চলাচল করে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

বগি ‘বাতিল’ করে যাত্রী রেখে চলে গেলো ট্রেন

আপডেট সময় : ১২:৪০:২১ অপরাহ্ন, সোমবার, ৪ জুলাই ২০২২

কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে একটি বগি এবং শতাধিক যাত্রী রেখে পঞ্চগড়ের উদ্দেশ্যে ছেড়ে গেছে একতা এক্সপ্রেস। সোমবার (৪ জুলাই) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ট্রেনটি স্টেশন ছেড়ে যায়। তবে ট্রেনটি প্লাটফর্ম ছাড়ার কথা ছিল সকাল ১০টা ১০ মিনিটে।

তবে স্টেশন সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ‘ট’ বগিতে আগে থেকেই ত্রুটি ছিল। তাই সেটিকে বাতিল করা হয়। তবে এ তথ্য না জেনেই অনেক যাত্রী ওই বগিতে উঠে পড়েন। তবে অনেকে অন্য বগিতে উঠে যাত্রা করেছেন।

বগি ও যাত্রী রেখে একতা এক্সপ্রেস প্লাটফর্ম ছেড়ে যাওয়ায় ক্ষোভ জানিয়েছেন যাত্রীরা। তাদের অভিযোগ, ওই বগিতে ত্রুটির বিষয়টি রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ যাত্রীদেরকে অবগত করেনি।

যাত্রী আকরাম হোসেন বলেন, ‘ট’ নম্বর বগিতে আমার আসন ছিল। আমার মতো আরও ১০৫ জন যাত্রী ওই বগিতে টিকিট কিনেছিলেন। নির্ধ‌ারিত সময়ে অনেকে আসনে বসেছিলেনও। তবে ছাড়ার সময় ট্রেনটি বগি রেখেই চলে গেছে।

ঈদযাত্রার সময় এমন ঘটনায় তারা চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন বলেও জানান তিনি।

কমলাপুর রেলস্টেশন সংশ্লিষ্টরা জানান, একতা এক্সপ্রেসের ‘ট’ বগিতে আগে থেকেই ত্রুটি ছিল। তাই সেটি বাতিল করা হয় এবং মূল ট্রেনের শেষে রাখা হয়। ফলে অনেক যাত্রী বগি বাতিলের তথ্য না জেনেই সেখানে উঠে পড়েন। অথচ বগি বাতিলের বিষয়টি সকাল ৯টার দিকে যাত্রীদেরকে অবগত করা হয়েছে। তবে আগে যারা বিষয়টি জেনেছেন, তারা অনেকে অন্য বগিতে উঠেছেন।

বগি রেখে ট্রেন চলে যাওয়ার বিষয়ে জানতে কমলাপুর রেলস্টেশনের ম্যানেজার মাসুদ সারওয়ারের মুঠোফোনে একাধিকবার কল দিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি।

একতা এক্সপ্রেস ট্রেনটি রাজধানী কমলাপুর স্টেশন থেকে পঞ্চগড়ের বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম রেলওয়ে স্টেশন (পঞ্চগড় রেলওয়ে স্টেশন) পর্যন্ত চলাচল করে।