শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:০৫ পূর্বাহ্ন

নায়িকা পরীমণির বাসায় র‍্যাবের অভিযান চলছে

 

প্রবাসী কণ্ঠ প্রতিবেদক:

 

 

প্রকাশ : ৪ জুলাই ২০২১, প্রকাশ সন্ধ্যা ৬টা

চিত্রনায়িকা পরীমণির  বনানীর বাসায় অভিযান চালাচ্ছেন র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‍্যাব) সদস্যরা। 

বিকেলে (৪ আগস্ট) বনানীর লেক ভিউ ১৯/এ নম্বর রোডের ১২ নম্বর বাড়িতে এ অভিযান শুরু হয়েছে। সন্ধ্যা ৬টায় এ প্রতিবেদন লেখা পযন্ত অভিযান চলছিলো।

র্র‌্যাবের দায়িত্বশীলরা জানান, সুনির্দিষ্ট কিছু অভিযোগের ভিত্তিতে চিত্রনায়িকা পরীমণির বাসায় র‍্যাব অভিযান পরিচালনা করছে। অভিযান শেষে এব্যাপারে বিস্তারিত জানানো হবে।

এর আগে পরিমনি তার বাসা থেকেই ফেসবুক লাইভে আসেন। এসময় তার বাড়ির প্রধান গেটে আগতদের উদ্দেশ্য তিনি জানতে চান, আসলে আপনারা কারা ? এভাবে এক ঘন্টা সময় অতিবাহিত হওযার পর পরিচয় নিশ্চিত হলে তখন র‌্যাব সদস্যদের বাড়িতে প্রবেশের অনুমতি দেয়া হয়।

এ সময় পরিমনি ভবনের পাঁচতলার বারান্দায় এসে সাংবাদিকদের বলেন, ভাই আপনারা উপরে কেন আসছেন না, আপনারা উপরে আসেন।

বিকেল পৌনে ৫টার দিকে পরীমণির বাসার নিচে দেখা যায়, র‍্যাব-১ এর একটি গাড়ি দাঁড়িয়ে আছে। এছাড়া, পুলিশের বেশ কয়েকটি গাড়িও রয়েছে। বাসার আশপাশে পুলিশ সদস্যরা অবস্থান নিয়েছেন। মূল গেটের সামনে কয়েকজন র‍্যাব সদস্যকে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। ছিলেন র‌্যাবের কয়েকজন নারী সদস্যও।

এর আগে, ফেসবুক লাইভে এসে পরীমণি অভিযোগ করেন, তার বাসায় ‘বিভিন্ন পোশাকে’ লোকজন এসে ফ্ল্যাটের দরজা খুলতে বলছেন। কিন্তু তিনি দরজা খুলতে ভয় পাচ্ছেন। এজন্য সংশ্লিষ্ট সবার সহযোগিতা কামনা করেন। পরীমণি লাইভে বলেন, ওই ব্যক্তিরা বাসার গেট ভেঙে উপরে এসে বারবার কলিং বেল বাজাচ্ছেন। পরিচয় জানতে চাইলে তারা পুলিশের লোক বলে দাবি করছেন। যদিও তাদের গায়ে বিভিন্ন রঙের পোশাক থাকায় বিশ্বাস করতে পারছেন না তিনি। এই অবস্থায় পরীমণি বনানী থানায় যোগাযোগ করেছেন বলেও লাইভে জানান। সেখান থেকে ফোর্স পাঠানোর কথা বলা হয়েছে। ’কিন্তু তারা এখনো এসে পৌঁছায়নি’ লাইভে বলেন পরী। পরীমণির ভাষ্য, ‘আমি এ কারণেই ভয় পাচ্ছিলাম। এখানে আমার কোনো নিরাপত্তা নেই। আমি এতো অসুস্থ। তিন দিন ধরে ঠিকমতো উঠতেই পারছি না।’ এক পর্যায়ে সহকর্মী, সাংবাদিক ও পরিচিতদের দ্রুত তার বাসায় যাওয়ার অনুরোধ করেন আলোচিত এ অভিনেত্রী।

গত জুন মাসে রাজধানীর একটি ক্লাবে পরীমণিকে হেনস্তা করার অভিযোগ ওঠে নাসির ইউ আহমেদসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে। তখনও তিনি ফেসবুক লাইভে এসে অভিযোগ করেছিলেন। এরপর বিষয়টি আমলে নেয় প্রশাসন। পরবর্তী সময়ে পরীমনির মামলার পরিপ্রেক্ষিতে সংশ্লিষ্টদের গ্রেফতার করা হয়। যদিও নাসির ইউ আহমেদ গ্রেফতারের

কয়েক দিন পরই জামিনে মুক্তি পান।

সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার করুন

© All rights reserved © Zahir-01743535311