ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ড বিল সংসদে উত্থাপন

৮৮৮৮

প্রবাসীকণ্ঠ ডেস্ক:
জাতীয় সংসদে মঙ্গলবার (৯ জানুয়ারি) ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ড বিল-২০১৮ উত্থাপন করা হয়েছে। বিদেশে বাংলাদেশি কর্মীদের মানসম্পন্ন সেবা দেওয়া, তাদের আস্থা অর্জন, মৃত কর্মীদের লাশ আনা, ব্যয় নির্বাহ ও এ সংক্রান্ত কাজে জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণই এর লক্ষ্য।
প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি বিলটি উত্থাপন করলে তা পরীক্ষা করা হয়। এরপর ১৫ দিনের মধ্যে সংসদে প্রতিবেদন দিতে তা পাঠানো হয় প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে।
এর আগে ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ তহবিল বিধিমালা-২০০২-এর মাধ্যমে এই কার্যক্রম পরিচালিত হতো। আইনের আওতায় আনার জন্য এখন বিলটি সংসদে তোলা হয়েছে।
প্রস্তাবিত আইন অনুযায়ী, বোর্ডে ১৬ সদস্যের পরিচালনা পর্ষদ থাকবে। প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব পদাধিকারবলে এর সভাপতি থাকবেন। নতুন আইনটি কার্যকর হলে পরিচালনা পর্ষদকে দুই মাসে একবার সভা করতে হবে। পর্যদের ১৬ জনের মধ্যে নয় জনের উপস্থিতিতে কোরাম হবে।
খসড়া আইনে বলা হয়েছে, প্রবাসীদের মৃতদেহ দেশে আনা, দাফন ও প্রবাসীদের পরিবারকে সহায়তা দেওয়ার কাজ করবে বোর্ড।

বিলে নারী অভিবাসীদের কল্যাণে বিশেষ উদ্যোগ নেওয়ার বিধান যুক্ত করা হয়েছে। বিদেশে কর্মরত কোনও নারী অভিবাসী কর্মী নির্যাতনের শিকার, দুর্ঘটনায় আহত, অসুস্থতা বা অন্য কোনও কারণে বিপদগ্রস্ত হলে এগুলো কার্যকর হবে। যেমন— তাকে উদ্ধার ও দেশে আনা, আইনগত ও চিকিৎসা সহায়তা দেওয়া, ক্ষতিপূরণ আদায়ের উদ্দেশ্যে দেশ-বিদেশে হেল্পডেস্ক ও সেফ হোম পরিচালনা করবে ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ড।

দেশে প্রত্যাগত নারী অভিবাসী কর্মীদের সামাজিক ও অর্থনৈতিকভাবে পুনর্বাসন ও পুনঃপ্রতিষ্ঠার জন্য প্রকল্প গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করা হবে এই বোর্ডের কাজ। সুত্র: বাংলা ট্রিবিউন