বিশ্বকাপ মিশনে রাতে দেশ ছাড়ছে টাইগার যুবারা

ঢাকা: জানুয়ারি ১৩ তারিখ থেকে অনুষ্ঠেয় অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপে অংশ নিতে রাতে নিউজিল্যান্ডের পথে রওনা হচ্ছে বাংলাদেশের যুবারা। সোমবার (২৫ ডিসেম্বর) দিবাগত রাত পৌনে একটায় হযরত শহাজলাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ক্রাইস্টচার্চের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাবে সাইফ-আফিফদের বিমান।

বিশ্বকাপ মিশনে দেশ ছাড়ার আগে সোমবার বিকেল ৪টায় মিরপুর জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের একাডেমি মাঠে এক আনুষ্ঠানিক ফটোসেশনে অংশ নেয় লাল-সবুজের যুবা দল ও দলের কর্মকর্তারা। আনুষ্ঠানিকতা শেষে সংবাদ মাধ্যমের সাথে কথা বলেন অধিনায়ক সাইফ হাসান, তার ডেপুটি আফিফ হোসেন ধ্রুব ও স্পিনার নাইম হাসান।

দেশের মাটিতে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের গেল আসরে সেমি ফাইনালে খেলেছিলো আয়োজক বাংলাদেশ। যুবা বিশ্বকাপের ইতিহাসে এটাই ছিল বাংলাদেশের সেরা অর্জন। তবে আশার কথা হলো নিউজিল্যান্ডে এবার সেই অর্জনকেও ছাপিয়ে যেতে চাইছেন অধিনায়ক সাইফ, ‘লক্ষ্যটা থাকবে আমাদের এক নাম্বারে। কিন্তু আমরা ধাপে ধাপে আগাব। আমরা ম্যাচ বাই ম্যাচ খেলবো। ওখানে আমরা যদি প্রথম রাউন্ড খেলে উঠতে পারি আমাদের কোয়ার্টার ফাইনাল আছে। তো অবশ্যই আমরা ধাপে ধাপে এগিয়ে যেতে চেষ্টা করবো।’

এই ক্ষেত্রে বর্তমান টিম কম্বিনেশনকেই নিজেদের সবচাইতে বড় শক্তি হিসেবে দেখছেন এই যুবা দলপতি, ‘আমরা এই ব্যাচটা অনেক দিন ধরে আছি। আমাদের কম্বিনেশন ও পরস্পরের প্রতি যোগাযোগ অনেক ভাল। এটাই আমাদের স্ট্রেংথ।’

সহ-অধিনায়ক আফিফ হোসেন ধ্রুব বিশ্বকাপের মঞ্চে নিজেদের সেরা খেলার প্রতিশ্রুতি দিলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য থাকবে সেরাটি দিয়ে দলকে ভাল কিছু উপহার দেওয়া।আমরা সবাই যদি ভালভাবে নিজেদের সেরাটি দিতে পারি তাহলে ভাল কিছু নিয়েই দেশে ফিরতে পারবো।’

আর অফ স্পিনার নাইম হাসান নিজের লক্ষ্যের কথা জনাতে গিয়ে বললেন, ‘আমার ব্যক্তিগত লক্ষ্য থাকবে দলকে শতভাগ দেয়া। আর ওখানে উইকেট দেখে বোলিং করবো। ওই কন্ডিশনে বাউন্সি উইকেট থাকবে। লেংথটা একটু এদিক ওদিক হবে। ব্যাটসম্যান ও উইকেট দেখে বোলিং করবো।’

নিউজিল্যান্ড পৌঁছে ডানেডিনে ১০ দিনের অনুশীলন ক্যাম্প করবে সাইফ-আফিফরা। মূল পর্বের আগে খেলবে তিনটি প্রস্তুতি ম্যাচ। এরপর ১৩ জানুয়ারি উদ্বোধনী দিন লিঙ্কনে নামিবিয়ার মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। ‘সি’ গ্রুপে থাকা বাংলাদেশের বাকি দুই প্রতিপক্ষ ইংল্যান্ড ও কানাডা।