নরওয়েতে চাপের মুখে উবার চালকরা

Uber-drivers-in-Norway-fear

প্রবাসী কণ্ঠ ডেস্ক

নরওয়ে’র রাজধানী অসলো’তে উবার গাড়ির কোনো অভাব নেই, কিন্তু এখানে প্রচলিত ট্যাক্সি প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে রাইড-শেয়ারিং খাতের চলমান লড়াইয়ে প্রতিদ্বন্দ্বীতা বেড়েই চলেছে, বলা হয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনবিসি’র প্রতিবেদনে।

সাম্প্রতিক মাসগুলোতে ট্যাক্সি সেবাদাতাদের প্রতিনিধিত্বকারী স্থানীয় সংস্থার সহায়তায় সেখানকার পুলিশ উবার-এর পিওপি সেবার জন্য কাজ করা লাইসেন্সবিহীন চালকদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিয়েছে। পিওপি হচ্ছে যাত্রীদের জন্য উবারের দেওয়া সবচেয়ে সহজলভ্য সেবা।

পুলিশের হাত থেকে বাঁচতে অনেক সময় চালকরা যাত্রীকে গাড়ির সামনের আসনে বসতে বলেন। নিজের ভ্রমণেও এমন অভিজ্ঞতা হওয়ার কথা প্রতিবেদনে জানিয়েছেন সংবাদমাধ্যমটির প্রতিবেদক।

অসলো’র প্রযুক্তি খাতে কাজ করা এক স্থানীয় বাসিন্দা ক্রিস্টিন স্টাওবো বলেন, “ট্যাক্সি প্রতিষ্ঠানগুলো নরওয়ে’তে একচেটিয়া আচরণ করে।”

অসলো’তে উবার পিওপি সেবা বিস্তৃত পরিসরেই ব্যবহৃত হয় আর ব্যস্ত সময়গুলোতে দামও বেড়ে যায়। স্টাওবো বলেন, শেষ নয় মাসে ট্যাক্সি প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে আরও তুলনীয় করে তুলতে উবারের দাম বাড়ানো হয়েছে।

উবার চালকরা রাস্তায় চলার সময় তাদের লাইসেন্স এমনকি গাড়ি হারানোর ভয়েও থাকেন, বলা হয় প্রতিবেদনটিতে।

২০১৫ সালে স্থানীয় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা সতর্ক করে বলেন, উবার চালকদের ‘অনিরাপদ বোধ করা’ উচিত নয়।

নরওয়ে, সুইডেন আর ফিনল্যান্ডে আইনি বাধার কারণে ব্যবসায় চালু করতে বেগ পেতে হয়েছে উবারকে। ডেনমার্কে নতুন ট্যাক্সি আইনের কারণে প্রতিষ্ঠানটির কার্যক্রম বন্ধ হয়ে গেছে।

প্রতিষ্ঠানটির ব্যবসায় কী যোগাযোগ প্রতিষ্ঠান নাকি সফটওয়্যার ব্যবসায় হিসেবে বিবেচিত হবে তা নিয়ে উবার ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন-এর সিদ্ধান্তের জন্য অপেক্ষা করছে।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম