রাউধার দ্বিতীয় ময়নাতদন্ত সম্পন্ন

RAODA-(2)20170424170930

রাজশাহী প্রতিনিধি

ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজের ছাত্রী ও মালদ্বীপের মডেল কন্যা রাউধা আথিফের মরদেহ দ্বিতীয় দফা ময়নাতদন্ত হয়েছে। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতাল মর্গে সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত মরদেহের ময়নাতদন্ত হয়।

সিরাজগঞ্জের শহীদ এম মনসুর আলী মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. আমিরুল চৌধুরীর নেতৃত্বে গঠিত মেডিকেল বোর্ড এ ময়নাতদন্ত করে।

বোর্ডের অন্য দুই সদস্য সিরাজগঞ্জের নর্থ বেঙ্গল মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. মাহবুব হাফিজ ও রাজশাহী মেডিকেল কলেজের রেডিওলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. হাফিজুর রহমান। তারাও এতে অংশ নেন।

ময়নাতদন্ত শেষে মেডিকেল বোর্ডের প্রধান ডা. আমিরুল চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, মরদেহ গলিত অবস্থায় ছিল। এজন্য ময়নাতদন্ত করতে গিয়ে বেগ পেতে হয়েছে তাদের। এরই মধ্যে ভিসেরা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। মামলাটি স্পর্শকাতর হওয়ায় এ নিয়ে এখই কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি অধ্যাপক আমিরুল।

আদালতের নির্দেশে এর আগে সকাল ১০টার দিকে রাজশাহী নগরীর হেতেম খাঁ করবস্থান থেকে রাউধার মরদেহ উত্তোলন করে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রক্তিম চৌধুরী, সিআইডির পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শফি ইকবাল ও রাউধার বাবা ডা. মোহাম্মদ আতিফ।

গত ৩১ মার্চ রামেক হাসপাতালের সাবেক অধ্যাপক ও বারিন্দ মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক ডা. মনসুর রহমানের নেতৃত্বে তিন সদস্যের মেডিকেল বোর্ড রাউধার ময়নাতদন্ত করে। রাউধা ‘গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন’ উল্লেখ করে পরে প্রতিবেদন দেয় মেডিকেল বোর্ড।

রাউধার স্বজনসহ মালদ্বীপের প্রতিনিধি দলের উপস্থিতিতে ১ এপ্রিল নগরীর হেতেম খাঁ কবরস্থানে দাফন করা হয় মরদেহ। কিন্তু শুরু থেকেই রাউধাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যার অভিযোগ জানিয়ে আসছেন বাবা ডা. আতিফ। রোববার সংবাদ সম্মেলন করে আবারও এ দাবি করেন তিনি।

গত ২৯ মার্চ বেলা ১১টার দিকে ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজ ছাত্রীনিবাসের দ্বিতীয় তলার ২০৯ নম্বর কক্ষ থেকে রাউধা আথিফের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

রাউধা মেডিকেলের এমবিবিএস দ্বিতীয় বর্ষে পড়তেন। তার বাড়ি মালদ্বীপের মালেতে। তার বাবা মোহাম্মদ আতিফ পেশায় একজন চিকিৎসক। ২০১৬ সালের ১৪ জানুয়ারি ওই কক্ষে ওঠেন রাউধা।

জাগোনিউজ২৪.কম