দেশে ১২টি বাজির ওয়েবসাইট বন্ধ

ঢাকা : ক্রিকেটসহ খেলাধুলাবিষয়ক ১২টি বাজির ওয়েবসাইট দেশে বন্ধ করে দিয়েছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। এসব সাইট বন্ধে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) এবং পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

বিসিবি ও পুলিশের চিঠিতে বলা হয়েছে, অনলাইনে জুয়া খেলায় তরুণ প্রজন্ম ঝুঁকে পড়েছে। এখনই ব্যবস্থা না নিলে ভবিষ্যতে উঠতি তরুণেরা আরও বিপথগামী হতে পারে। বিসিবির চিঠিতে ১২টি সাইটকে চিহ্নিত করে তা বাংলাদেশে বন্ধের অনুরোধ জানানো হয়। সাইটগুলো হলো বেট ৩৬৫ ডটকম, ৮৮ স্পোর্টস ডটকম, রেবটওয়ে ডটকম, বেটফ্রিড ডটকম, ডাফাবেট ডটকম, বেটফেয়ার ডটকম, ইউনিবেট ডটকম, বেট ভিক্টর ডটকম, নেটবেট ডটকম, টাইটানবেট ডটকম, উইনার ডটকম ও পেডি পাওয়ার ডটকম।

জানতে চাইলে বিসিবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজাম উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘যেকোনো ধরনের জুয়া ও ফিক্সিংয়ের বিষয়ে বোর্ডের “জিরো টলারেন্স” নীতি রয়েছে। আমাদের দেশের আইন, সামাজিকতাও এসব বিষয় অনুমোদন করে না। সেগুলো মাথায় রেখেই যথাযথ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে বিটিআরসিকে চিঠি দেওয়া হয়েছে।’

সিটিটিসির অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) নাজমুল ইসলাম বলেন, ‘শুধু সাইটগুলো বন্ধ করতে বলা হয়েছে বিষয়টি এ রকম না, জুয়া খেলার প্রবণতা থেকে সাধারণ মানুষকে মুক্ত রাখতেই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। জুয়ার সঙ্গে অনেক ব্যক্তির সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ পাওয়া গেছে, তাঁরা আমাদের নজরদারিতে রয়েছে।’

সিটিটিসি সূত্রে জানা গেছে, এসব সাইটের জুয়াড়িরা নগদ লেনদেনের পাশাপাশি পেপ্যাল, মাস্টার কার্ড, ডেবিট কার্ড, ক্রেডিট কার্ডের মতো ব্যাংকিং চ্যানেলেও অর্থ লেনদেন করে। আর পুরো প্রক্রিয়ার সঙ্গে দেশ-বিদেশের একটি প্রভাবশালী চক্রও জড়িত আছে। গত এক মাসে এসব সাইটের মাধ্যমে ক্রীড়াবিষয়ক বাজির অভিযোগে ২০০-এর বেশি লোককে আটক করা হয়। কিন্তু এ-সংক্রান্ত সুস্পষ্ট আইন না থাকায় আটক হওয়া ব্যক্তিদের সবাই জামিন পেয়েছেন।

নাজমুল ইসলাম বলেন, জুয়া প্রতিরোধে পুরোনো একটি আইন থাকলেও ইন্টারনেটভিত্তিক জুয়া প্রতিরোধে শক্ত আইন দেশে নেই। তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইনেও ইন্টারনেট ব্যবহার করে জুয়া খেলার শাস্তির বিষয়ে বিধান নেই।

বর্তমান আইন অনুযায়ী, যেকোনো স্থান জুয়ার আসর হিসেবে ব্যবহৃত হলে অভিযুক্ত ব্যক্তির তিন মাসের কারাদণ্ড বা অনূর্ধ্ব ২০০ টাকা জরিমানা অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হওয়ার নিয়ম আছে। ক্রীড়া জুয়ার ক্ষেত্রে এক মাস পর্যন্ত কারাদণ্ড অথবা ১০০ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হতে পারেন অভিযুক্ত ব্যক্তি।

বিটিআরসির সচিব ও মুখপাত্র সরওয়ার আলম প্রথম আলোকে বলেন, বিসিবি ও সিটিটিসির চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে জুয়ার ওয়েবসাইট বন্ধে কমিশন ব্যবস্থা নিয়েছে।