বায়োমেট্রিকের অভিজ্ঞতা নিতে চায় মালয়েশিয়া

প্রবাসী কণ্ঠ নিউজ : বায়োমেট্রিক বা আঙ্গুলের ছাপ পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধনের যে অভিজ্ঞতা বাংলাদেশ অর্জন করেছে তা নিতে চায় মালয়েশিয়া। এ ব্যাপারে বাংলাদেশের সর্বাত্মক সহযোগিতা চেয়েছে দেশটি। মঙ্গলবার সকালে ঢাকায় নিযুক্ত মালয়েশিয়ার হাইকমিশনার নুর আশিকিন বিনতে মোহাম্মদ তাইব ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিমের সঙ্গে বৈঠক করেন। এ সময় তিনি এই সহযোগিতা চান। বৈঠক শেষে প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম সাংবাদিকদের বলেন, আমাদের বায়োমেট্রিক সফলতায় মালয়েশিয়া বিস্মিত। তারাও তাদের দেশে এই পদ্ধতিটি কার্যকর করতে চায়। এজন্য নতুন হাইকমিশনার সার্বিক সহযোগিতা চেয়েছেন। আমি তাদেরকে সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছি। তারানা হালিম বলেন, মাত্র পাঁচ মাসের মধ্যে আমরা এই কর্মযজ্ঞ সম্পাদন করেছি। আমি তাদেরকে জানিয়েছি, এই প্রকল্প বাস্তবায়নে সরকারের এক টাকাও খরচ হয়নি। মোবাইল কোম্পানিগুলো নিজেরাই এটা বাস্তবায়ন করেছে। মোবাইল ফোনে অপরাধ প্রবণতা কমাতে গত বছরের শেষ দিকে আঙ্গুলের ছাপে মোবাইল সিম নিবন্ধনের সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। চলতি বছরের মে মাসের মধ্যে সম্পন্ন হয় এই প্রক্রিয়া। এটা নিয়ে প্রথমে সন্দেহ ও শঙ্কা থাকলেও এর সুফল পাচ্ছেন ব্যবহারকারীরা। কল ড্রপ নিয়ন্ত্রণে কঠোর নির্দেশনা মোবাইল ফোনের কল ড্রপ নিয়ন্ত্রণে কঠোর নির্দেশনা দেয়া হয়েছে বলে জানান প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম। তিনি বলেন, ইতোমধ্যে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসিকে এ ব্যাপারে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। প্রতিমন্ত্রী জানান, ডিসেম্বর থেকেই কল ড্রপে জরিমানা দেয়ার কথা ছিল। তবে তা কার্যকর হয়নি। আগামী জানুয়ারি থেকে কল ড্রপের জরিমানা আদায়ে বিটিআরসিকে কড়া নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। 0 0