তারুণ্যের প্রতিবাদের নয়ারূপ

pic-15

ডেস্ক রিপোর্ট : সময়ের পট পরবির্তনের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে ‘প্রতিবাদ’ শব্দের ধরণগত পরিবর্তন এসেছে বহুবার। কখনও যা রূপ নিয়েছে শান্তিপূর্ণ আবার কখনোবা রক্তক্ষয়ী। একই সঙ্গে সময়ের সাথে পাল্লা দিয়ে পরিবর্তন এসেছে মানুষের প্রকাশভঙ্গি থেকে প্রতিবাদের ভাষায়।

পরিবর্তনের ধারার সঙ্গে সঙ্গতি রেখে এবার দেখা গেলো ভিন্ন মাত্রায় প্রতিবাদের বহিঃপ্রকাশ। যার ভিন্নতার প্রশ্নে আসে মানব অস্তিত্বের এক নতুন রূপ। যাতে যে কাউকেই ধরতে বা দেখতে পারবেন, শুনতে পারবেন তার কথা কিন্তু তিনি সবসময়ই ব্যক্তিটি থাকবেন স্পর্শের বাইরে।

কিছুটা অস্বাভাবিক শুনালেও, এবার সরকারি স্থাপনার সামনে অবস্থান কর্মসূচির বিরুদ্ধে সরকারের বাধাকে বুড়ো আঙ্গুল দেখাতেই প্রযুক্তির এ নতুন ব্যবহার।

এ লক্ষ্যে এবার একদল আন্দোলনকারী ‌‌‌আয়োজন করেছে বিশ্বের প্রথম ভার্চুয়াল রাজনৈতিক বিক্ষোভ কর্মসূচি। মূলত সরকারি ভবনে বিক্ষোভ নিষিদ্ধ করার প্রতিবাদেই এই কর্মসূচি। নাগরিক নিরাপত্তা আইনের আওতায় হাসপাতাল, বিশ্ববিদ্যালয়সহ কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া আগামী ১ জুলাই থেকে সরকারি ভবনের সামনে জমায়েত নিষিদ্ধকরণ আইনের বিলোপ দাবি করেছে আয়োজকরা।

সম্প্রতি মাদ্রিদে স্প্যানিশ পার্লামেন্টের সামনে আয়জিত এ বিক্ষোভে হাজার হাজার হলোগ্রাম অংশ নেয়। তাদের ভার্চুয়াল দাবি একটাই। সেটা হচ্ছে বিতর্কিত ‘গ্যাগ’ আইনের বিলোপ সাধন। এই আইন ভঙ্গকারীদের ৫০ হাজার ইউরো পর্যন্ত জরিমানা করার বিধান রাখা হয়েছে। কেল তাই নয়, জমায়েতের ছবি তুললেও গুনতে হবে ন্যূনতম ৩০ হাজার ইউরো।

এর প্রতিবাদে ‘নো সোমোস ডেলিতো’ বা ‘আমরা অপরাধ নই’ শীর্ষক ভার্চুয়াল বিক্ষোভের ডাক দেয় দেশটির আন্দোলনকর্মীরা। আয়োজকরা সমর্থকদের প্রতি ওয়েব ক্যামেরায় নিজেদের ছবি পাঠিয়ে কর্মসূচিতে অংশ নেওয়ার আহবান জানিয়েছেন।

স্প্যানিশ সংবাদপত্র এল পাইস জানায়, দুই হাজারের বেশি ভার্চুয়াল প্রজেকশনের মাধ্যমে ঘণ্টাব্যাপী এই কর্মসূচি পালন করা হয়। তবে, ইতিহাসের প্রথম হলোগ্রাম বিক্ষোভের আয়োজকরা বলেন, এই অবৈধ আইন রদ করা না হলে ভবিষ্যতে প্রয়োজনের তাগিদেই নতুন ধরনের প্রতিবাদ-বিক্ষোভের মুখোমুখি হতে হবে কর্তৃপক্ষকে।

শুধু ইউরোপেই নয়, গত বছরের বিধানসভা নির্বাচনে ভারতে একযোগে বিভিন্ন রাজ্যে নরেন্দ্র মোদি এক ঘণ্টার রাজনৈতিক বক্তব্য দিয়েছিলেন হলোগ্রামিক চরিত্রে।

আয়োজকদের দাবি, হলোগ্রামে নিজেদের বাস্তব পৃথিবীর চেয়ে ভার্চুয়াল বাস্তবতায় মত প্রকাশ অনেক বেশি স্বাধীন।