শেষ দিনে জমজমাট ট্রাভেল মার্ট

0

সোনরাগাঁও হোটেল থেকে

শেষ দিনে জমে উঠেছে পর্যটন মেলা ‘ঢাকা ট্রাভেল মার্ট। মেলার শেষ দিন হওয়ায় সকাল থেকেই ভিড় জমাচ্ছেন দর্শনার্থীরা।
১ এপ্রিল শনিবার রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স আয়োজিত ঢাকা ট্রাভেল মার্টে সকাল ১০টা থেকে সমবেত হন দর্শনার্থীরা।
ট্রাভেল মার্টে প্রবেশ করে বিভিন্ন ট্রাভেল এজেন্সির স্টল ঘুরে রিসোর্ট-হোটেল, পযর্টন সংস্থা ও এয়ারলাইন্সের দেয়া বিভিন্ন প্যাকেজ সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করেন আগ্রহীরা। অনেকে পছন্দের প্যাকেজে বুকিংও দিয়েছেন।
আগত দর্শনার্থীদের মধ্যে কয়েকজনের সাথে কথা বলে জানা যায়, সময়োপযোগী একটি আয়োজন করেছে ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স। বাংলাদেশের মানুষ এখন বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ভ্রমণ করতে যায়। এই ট্রাভেল মার্টের মাধ্যমে ভ্রমণ পিপাসুরা নিজেদের পছন্দের প্যাকেজটি যাচাই-বাছাই করার সুযোগ পাছেন। ট্রভেল এজেন্সিগুলো ট্রাভেল মেলা উপলে সুলভ মূল্যে প্যাকেজ ঘোষণা করছে যা ভ্রমণ পিপাসুদের জন্য দারুণ একটি সুযোগ।
বগুড়ার ব্যবসায়ী মো. রবিউল আলম বলেন, ব্যবসায়িক কাজে প্রতি বছরই বিদেশ ভ্রমণ করা হয়। ট্রাভেল মার্টে এসে বিভিন্ন ট্রাভেল এজেন্সিগুলোর প্যাকেজ যাচাই-বাছাই করতে পারছি। এটি আসলে একটি ভালো উদ্যোগ। ভ্রমণ যারা করেন তাদের জন্য এই ট্রাভেল মার্টে অনেক সুযোগ সুবিধা রয়েছে।

ঢাকা ট্রাভেল মার্টে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের স্টলে আগ্রহীদের ভীড়

ঢাকা ট্রাভেল মার্টে আগত আরকে দর্শনার্থী দীপক দেবনাথ বলেন, আজ ট্রাভেল মার্টের শেষ দিন তাই সকাল সকালই চলে এসেছি। বিকেল পর্যন্ত ঘুরে ট্রাভেল এজেন্সিগুলোর বিভিন্ন অফার ও প্যাকেজগুলো জানার চেষ্টা করবো। পরে পছন্দ মতো একটি অফার বুকিং দিয়ে যাব।
ঢাকা ট্রাভেল মার্টে অংশগ্রহণ করা ট্রাভেল এজেন্সিগুলোর কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বাংলাদেশে গত কয়েক বছর ধরে বিদেশে ভ্রমণকারীদের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। আর এর সুযোগ নিয়ে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী ভ্রমণকারীদের সঙ্গে প্রতারণা করছেন। তাই এই ট্রাভেল মার্টের মাধ্যমে আমরা দর্শনার্থীদের সঠিক তথ্য ও গাইডলাইন দেয়ার চেষ্টা করছি। এছাড়া ভ্রমণকারীদের জন্য সুলভ মূল্যে বিভিন্ন প্যাকেজও রয়েছে।
ট্রাভেল মার্টে অংশগ্রহণ করা মাউন্ট কাব ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাাভেল এজেন্সির অ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার (সেলস অ্যান্ড মার্কেটিং) মো. ইমরান খান বলেন, গত বছরের তুলনায় ট্রাভেল মার্টে অনেক বেশি সাড়া পাচ্ছি। আমাদের এই ট্রাভেল মার্টের মূল উদ্দেশ্য হল টিকিট বুকিং থেকে শুরু করে হোটেল বুকিং পর্যন্ত সব তথ্য ও গাইডলাইন সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি করা। যাতে করে টুরিস্টরা কোনো সমস্যায় না পড়েন।

তিন দিনব্যাপী এ ট্রাভেল মার্টের পর্দা নামবে শনিবার (১ এপ্রিল) রাত ৮টায়। স্বাগতিক বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশের ৫০টির বেশি প্রতিষ্ঠান এতে অংশ নিয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে জাতীয় পর্যটন সংস্থা, বিভিন্ন এয়ারলাইন্স, ট্রাভেল ও ট্যুর অপারেটর, হোটেল ও রিসোর্ট, পর্যটন স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান, অনলাইন বুকিং/পোর্টাল প্রভৃতি।