রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের জ্বালানি সরবরাহে চুক্তি সাক্ষর

14

 

নিজস্ব প্রতিবেদক
রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের পারমাণবিক জ্বালানি প্রস্তুত ও সরবরাহকারী কোম্পানির সাথে বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশনের মধ্যে একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত রয়েছে।
গতকাল মঙ্গলবার সকালে ঢাকার প্যান প্যাসিফিক হোটেল সোনারগাঁ এ আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এ চুক্তি স্বাক্ষর হয়।
বাংলাদেশের পক্ষে চুক্তিতে সই করেন পরমাণু শক্তি কমিশনের চেয়ারম্যানান মাহবুবুল হক এবং রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান রাশিয়ান নিউক্লিয়ার ফুয়েল সাপ্লাই কোম্পানির (টিভিইল) কমার্শিয়াল ডিরেক্টর ফেদর শকোলভ।
এতে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন এসডিজির মুখ্য সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ। এছাড়া অনুষ্ঠানে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ আনোয়ার হোসেন, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের প্রকল্প পরিচালক ড. শৌকত আকবর, ঢাকায় নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেক্সান্দর আই ইগনাতভ, রোসাটম, মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী তার বক্তব্য বলেন, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ট বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান র্সবপ্রথম রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র প্রকল্পটি বাস্তবায়নের উদ্যোগ গ্রহন করেন। সেই ধারাবাহকিতায় বঙ্গবন্ধুর কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননত্রেী শেখ হাসিনার সরকার প্রকল্পটি বাস্তবায়নে জোরালো পদক্ষেপ গ্রহন করেন। আর এটি সম্ভব হয়েছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আগ্রহ, উদ্যোগ, সাহস এবং দুরর্দশী সিদ্ধান্তের ফলে। যা আজ দৃশ্যমান।
তিনি বলেন, রাশিয়ার সার্বিক সহযোগিতায় পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার রূপপুরে নির্মিত হচ্ছে বাংলাদেশের প্রথম পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র। এই পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের আয়ুস্কাল পর্যন্ত এখানে জ্বালানি হিসেবে ব্যবহৃত ইউরেনিয়াম সরবরাহ করবে রাশিয়া। চুক্তিটি একটি ফ্রেমওয়ার্ক চুক্তি। ২০১৬ সাল থেকে বাংলাদেশ ও রাশান পক্ষের মধ্যে বিস্তর নেগোসিয়েশনের মাধ্যমে চুড়ান্ত করা হয়েছে বলে জানান তিনি।
মন্ত্রনালয়ের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা বিবেকানন্দ রায় স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, চুক্তি অনুযায়ী রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রটি যতদিন উৎপাদনে থাকবে, ততদিন রাশিয়া এই বিদ্যুৎকেন্দ্রের জ্বালানি ইউরেনিয়াম সরবরাহ করবে। রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় পারমাণবিক শক্তি করপোরেশন-রোসাটম এই রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। দুই ইউনিট বিশিষ্ট এই পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রে সর্বাধুনিক প্রযুক্তির ৩+ প্রজন্মের রিয়্যাক্টরভিভিইআর-১২০০ স্থাপন করা হবে। এর প্রথম ইউনিটের কাজ শেষ হবে ২০২৩ ও দ্বিতীয় ইউনিট ২০২৪ সালে।