রামপুরায় স্বামীকে আটকে গৃহবধূকে গণধর্ষণ

0

ঢাকা: রাজধানীর রামপুরায় স্বামীকে আটকে রেখে এক গৃহবধূকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় শনিবার রামপুরা থানায় চারজনের নাম উল্লেখ করে একটি মামলা হয়েছে।

রামপুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুবুর রহমান জানান, মামলায় অভিযুক্ত আসামিরা হলেন সুজন, মইন, আরিফ ও ফরহাদ। তারা সবাই মাদকাসক্ত। তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে জানান তিনি।

ধর্ষণের শিকার ওই গৃহবধূ ও তার স্বামী শনিবার সকাল নয়টার দিকে ঢাকায় এসে পশ্চিম রামপুরার পলাশবাগে এক আত্মীয়ের বাসায় ওঠেন। ওই আত্মীয় গৃহবধূর স্বামীর খালা হন।

ওই আত্মীয় বলেন, তিনি বাসাবাড়িতে কাজ করেন। শনিবার সকাল দশটার দিকে তিনি ভাগ্নে ও ভাগ্নের স্ত্রীকে বাসায় রেখে কাজে যান। প্রায় আধা ঘণ্টা পর বাসার পাশের একজনের কাছ থেকে ফোনে খবর পেয়ে তিনি তড়িঘড়ি বাসায় গিয়ে দেখেন, স্থানীয় কয়েকজন বখাটে তার ভাগ্নে ও ভাগ্নের স্ত্রীকে মারধর করছে। তিনি বাধা দিতে গেলে ওই বখাটেরা তাকে বাথরুমে আটকে রাখে। এ সময় বখাটেদের কয়েকজন তার ভাগ্নেকে পাশের একটি পরিত্যক্ত ভবনের দুই তলায় নিয়ে মারধর করতে থাকে। আর কয়েকজন বখাটে তার কক্ষের দরজা বন্ধ করে ভাগ্নের স্ত্রীকে ধর্ষণ করে। যাওয়ার সময় তারা নগদ টাকা ও কিছু স্বর্ণালংকার নিয়ে যায়।

পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আলামত সংগ্রহ করে এবং গৃহবধূর বক্তব্য নেয়। গৃহবধূকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।