বিমানবন্দরে প্রবাসীদের হয়রানি না করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

3

বিমানবন্দর দিয়ে আসা-যাওয়ার সময় প্রবাসীদের প্রতি খেয়াল রাখার জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে সতর্ক থাকতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।শনিবার (২৮ ডিসেম্বর) হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের তৃতীয় টার্মিনালের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনকালে তিনি এ কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘বিমানবন্দরে প্রবাসীদের যেন কোনো ধরনের হয়রানির শিকার হতে না হয়, সেদিকে বিশেষ দৃষ্টি দিতে হবে।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘প্রবাসীদের অর্থে আমাদের রিজার্ভ নিশ্চিত হয়। তারা যখন একটি কর্মস্থল থেকে ফেরেন, অনেক সময় তাদের নানাভাবে হয়রানি করা হয়। তবে এখন অনেকটা কমে গেছে। তারপরও আমি বলবো, আমাদের দেশের যারা বিদেশে যান, তাদের কাছ থেকে থেকে বিরাট অঙ্কের বৈদেশিক মুদ্রাও অর্জন করি। তাদের সুবিধাগুলো দেখতে হবে। তাদের যেন কোনো রকম হয়রানি এখানে করা না হয়।’ শেখ হাসিনা বলেন, ‘একটা কথা মনে রাখবেন, আসলে আমার তো আর কোনো কাজ নেই। সারা দিন আমি দেশের কাজই করি। কোথায় কী হয় না হয়, টুকটাক খবরগুলো নেয়ার চেষ্টা করি। কাজেই অনিয়ম বা ব্যত্যয় ঘটাতে গেলে সঙ্গে সঙ্গে আমার কাছে কিন্তু খবরটা চলে আসে। এটা সবাইকে মনে রাখতে হবে।’ অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী, বিমান মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি র আ ম ওবায়দুল মুক্তাদির চৌধুরী, বিমানের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান ইনামুল বারী, বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. মহিবুল হক, বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) নতুন চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মফিদুর রহমান প্রমুখ।