ফ্রান্স গুগলকে ৫৫ কোটি ডলার জরিমানা করল

2

কর ফাঁকির মামলায় আদালতের নির্দেশে অনলাইন সার্চইঞ্জিন গুগলকে ৫৫ কোটি ডলার জরিমানা করেছে ফ্রান্স। কর দেয়ার মতো প্রতিষ্ঠানগুলো ঠিকমতো হিসাব দিচ্ছে কিনা, তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন ফরাসি কর্মকর্তারা। গুগলকে ট্যাক্স জালিয়াতির অভিযোগে ফরাসী সরকারকে প্রায় ১ বিলিয়ন ডলার প্রদানের আদেশ দেয়া হয়েছে। ইউরোপীয় কর্তৃপক্ষ ডিজিটাল কর ফাঁকি দমন করার নতুন উপায় অনুসন্ধান করছে বলে এই রায় এসেছে। প্যারিসের একটি আদালত বৃহস্পতিবার কর ফাঁকির অভিযোগে ৫০০ মিলিয়ন ইউরো (৫৫১ মিলিয়ন ডলার) জরিমানা এবং ফরাসি কর কর্তৃপক্ষের সাথে দাবি নিষ্পত্তি করার জন্য অতিরিক্ত ৪৬৫ মিলিয়ন ডলার জরিমানা অনুমোদন করেছে।

এই রায়টি ফরাসী কর্তৃপক্ষের তদন্ত শেষ করেছে যা ২০১৫ সাল থেকে চলছিল। ফরাসি বিচারমন্ত্রী নিকোল বেলুবেট এবং বাজেটমন্ত্রী জেরাল্ড ডারমানিন সমস্ত বিতর্কিত ইস্যুতে ‘স্থির নিস্পত্তি’ প্রশংসা করেছেন। ‘এই ফলাফলটি ফ্রান্সের জনস্বাস্থ্য এবং আর্থিক খাতের জন্য সুসংবাদ’-  তারা একটি বিবৃতিতে বলেছে। বেলোবেট যোগ করেছেন যে, এই বন্দোবস্তটি দেখিয়েছিল ফরাসি কর্তৃপক্ষের কাছে একটি ন্যায়সঙ্গত শুল্ক ব্যবস্থা নিশ্চিত করার সরঞ্জাম রয়েছে। ‘এটি আমাদের জনসাধারণের অর্থায়নের জন্য এবং এটি একটি যুগের সমাপ্তি চিহ্নিত করার জন্য উভয়ই ঐতিহাসিক নিষ্পত্তি।’

এ ব্যাপারে গুগলের এক  মুখপাত্র বলেন, আমরা নিশ্চিত যে বিশ্বব্যাপী পরিচালিত সংস্থাগুলিকে সুস্পষ্ট কাঠামো সরবরাহ করার জন্য আন্তর্জাতিক কর ব্যবস্থার সমন্বিত সংস্কারই সর্বোত্তম উপায়। আমরা ফ্রান্সে কর ও প্রাসঙ্গিক সব মামলা মীমাংসা করেছি, যা অনেক বছর ধরে চলে আসছিলো। ওই মুখপাত্রের বরাতে প্রযুক্তি সাইট ভার্জ থেকে জানা যায়, মামলার মীমাংসায় ফরাসি আদালতের নির্দেশে ৫০ কোটি ইউরো জরিমানা দেয়া হবে এবং বাড়তি আরো ৪৬ কোটি ৫০ লাখ ইউরো কর দিতে আমরা রাজি। যা আমাদের আর্থিক প্রতিবেদনে যোগ করা হবে। গুগলের মতো প্রতিষ্ঠানের জন্য এই জরিমানার অংক সামান্য। চলতি মাসের শুরুতেই ইউটিউবের মাধ্যমে শিশুদের ডিজিটাল গোপনীয়তা নীতিমালা ভঙ্গে গুগলকে আরো ১৭ কোটি ডলার জরিমানা করেছে মার্কিন ফেডারেল ট্রেড কমিশন। ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন প্রযুক্তি খাতের জন্য যে নীতিমালা প্রণয়ন করেছে অনেকেই সেটাকে আগ্রাসী বলছেন। বিশেষভাবে ফ্রান্স চলতি গ্রীষ্মের মধ্যে অনলাইন প্ল্যাটফর্মে কর বাড়ানোর প্রস্তাব করেছে। এতে ফেসবুক এবং গুগলের মতো বড় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো বিপাকে পড়বে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ২০১২ সালে একবার অনলাইনে ম্যাপ নিয়ে অনৈতিক প্রতিযোগিতার কারণে  আদালত গুগলকে ৫ লাখ ইউরো জরিমানা করেছিল। একটি ফ্রান্সভিত্তিক প্রতিষ্ঠানের আর্থিক সেবায় কোনো ঘোষণা ছাড়াই গুগল ম্যাপ সেবা চালু করে । এতে ওই প্রতিষ্ঠানটি ব্যাপক আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হয়। তাছাড়া ওই প্রতিষ্ঠানটি সরকারকে সেবাব্যয় দিয়েই ম্যাপকেন্দ্রিক এ ব্যবসা চালু করে।
কিন্তু গুগল কোনো বাণিজ্য চুক্তি ছাড়াই ফ্রান্সে ম্যাপ সেবা চালু করে। ফলে ওই সরকারি নিবন্ধিত প্রতিষ্ঠানটি ব্যাপক আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হলে গুগলের বিরুদ্ধে মামলা করে বসে। এ রায় যায় গুগলের বিপক্ষে।