দূতাবাসগুলোকে রাস্তা ছেড়ে দিতে হবে

0

প্রবাসীকণ্ঠ ডেস্ক
রাজধানীর অভিজাত এলাকা গুলশানের সব ফুটপাত অবৈধ দখলমুক্ত করার উদ্যোগ নিয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)। এরই অংশ হিসেবে গতকাল মঙ্গলবার সকালে ক‚টনৈতিক পাড়ায় ইতালিয়ান দূতাবাসের সামনে থাকা বøক ও পুলিশ বক্স উচ্ছেদ করে ডিএনসিসি। এরপর দুপুরে পাকিস্তান হাইকমিশনের সামনের রাস্তার বøক তুলে ফেলা হয়।
সকালে উচ্ছেদ অভিযানের শুরুতে মেয়র আনিসুল হক সাংবাদিকদের বলেন, দূতাবাসগুলোর নিরাপত্তা ঠিক রেখে, ফুটপাতগুলোকে সাধারণ মানুষের চলাচল উপযোগী করা হবে। তারা গত ১০ বছর ধরে এমনভাবে দখল করে আছেন যে, আমাদের সাধারণ মানুষ চলতে পারেন না, চলতে দেয় না। যা পৃথিবীর কোথাও নেই। আমরা সব দূতাবাসকে বলেছি, তোমাদের নিরাপত্তা আমরা দেখব, তবে আমাদের রাস্তা ছেড়ে দিতে হবে।
তিনি বলেন, তিনমাস আগে প্রায় সব দূতাবাসকে চিঠি দিয়ে জানানো হয়েছে ফুটপাত থেকে বøক সরিয়ে নিতে। অনেকেই সাড়া দিয়েছে। আমরা আরো একবার চিঠি দেবো, ফোনে কথা বলব। এরপর না সরালে আমাদের কাজ আমরা করব। পাকিস্তান হাইকমিশনের সামনে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের মেয়র অস্ট্রেলিয়ান দূতাবাসে গিয়ে সেখানকার কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানান, আমার অস্ট্রেলিয়ান দূতাবাসকে বলেছি, তোমাদের নিরাপত্তা আমাদের কাছে গুরত্বপূর্ণ। নিরাপত্তার বিষয়টা দেখব, তোমরা আমাদের রাস্তা ছেড়ে দাও, সাধারণ মানুষকে চলতে দাও। তারা আমাদের সঙ্গে একমত হয়েছেন। আশাকরি একমাসের মধ্যে অস্ট্রেলিয়ান দূতাবাসের সামনের রাস্তাও দখলমুক্ত করতে পারব। আমরা গুলশানবাসী ও ঢাকাবাসীর জন্য প্রতিজ্ঞাবদ্ধ যে, ফুটপাতগুলোকে চলাচল উপযোগী করব, চলাচল করতে দেবো। আমরা সব আলাপ-আলোচনার ভিত্তিতেই করব। ফুটপাত দখলমুক্তকরণের আওতায় মাদানী এভিনিউতে মার্কিন দূতাবাস ও কানাডিয়ান হাইকমিশন কর্তৃক ফুটপাত অবরুদ্ধকারী সিসি বøক অপসারণ করে পথচারীদের স্বাচ্ছন্দ্যে ফুটপাতে চলাচল নিশ্চিত করা হবে। গুলশান ৫৫ নং সড়কে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের বাসভবনের সামনের সড়কের ওপর বিদ্যমান কমবেশি ৪০টি সিসি ব্লক অপসারণ করা হবে।
গুলশান ৫৪ নং সড়কে ইতালিয়ান রাষ্ট্রদূতের বাসভবনের সামনে সড়কের উপর বিদ্যমান সব (প্রায় ৬০টি) সিসি বøক অপসারণ, গুলশান ৩ নং সড়কে ইন্দোনেশিয়ার রাষ্ট্রদূতের বাসভবনের সামনে ফুটপাতের উপর নির্মিত সিকিউরিটি শেড অপসারণ করা হবে। ইতালীয় দূতাবাসের সামনে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদক‚টনৈতিক এলাকার ফুটপাতগুলো দখলমুক্ত করে প্রতিটি ফুটপাত পথচারী চলাচলের পাশাপাশি প্রতিবন্ধীবান্ধব করা হবে বলেও জানান মেয়র। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা যেন তাদের হুইল চেয়ার নিয়ে সহজেই যেতে পারেন সে ব্যবস্থাও করা হবে। তবে কোনোভাবেই ফুটপাত দখল করতে দেয়া হবে না। সকালে ইতালিয়ান দূতাবাসের সামনের রাস্তার অবৈধ ব্লক সরাতে সহায়তা করেন ইতালিয়ান দূতাবাসের ডেপুটি হেড অব মিশন জিউসেপ সেমেনজা। এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন ডিএনসিসির প্রধান প্রকৌশলী ইঞ্জিনিয়ার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাঈদ আনোয়ারুল ইসলাম, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ সাজিদ আনোয়ার ও গুলশান এলাকার আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী এ কাজে সহায়তা করে। অভিযান শেষে অস্ট্রেলিয়া দূতাবাস, জার্মান দূতাবাস, সউদী দূতাবাস ও রাশিয়ান দূতাবাসে চিঠি দিয়ে জানানো হয়, তাদের সামনের সব অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নিতে। সূত্র: ইনকিলাব