চট্টগ্রাম-মদিনা সরাসরি ফ্লাইট চালু ৩১ অক্টোবর

2

চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে সৌদি আরবের মদিনায় সরাসরি ফ্লাইট চালু করতে যাচ্ছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। আগামী ৩১ অক্টোবর চট্টগ্রাম-মদিনা রুটে বোয়িং ৭৭৭ উড়োজাহাজে যাত্রী পরিবহন শুরু হবে। প্রাথমিকভাবে সপ্তাহে চলবে একদিন। প্রতি বৃহস্পতিবার দুপুরে শাহ আমানত থেকে উড্ডয়ন করবে মদিনাগামী ফ্লাইট।

বিমান সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে চট্টগ্রাম থেকে মদিনা রুটে দেশি-বিদেশি বিমান সংস্থার সরাসরি কোনো ফ্লাইট নেই। বর্তমানে চট্টগ্রামের যাত্রীদের ঢাকা বিমানবন্দর হয়ে মদিনা যেতে হচ্ছে। আর চট্টগ্রাম থেকে গেলে দুবাই বা জেদ্দা পৌঁছে সেখান থেকেই মদিনা যেতে হয়। সরাসরি ফ্লাইট চালু হওয়ায় মদিনা যাওয়া অনেক বেশি সহজ হবে চট্টগ্রামের যাত্রীদের। এতে শুধু ফ্লাইট ভাড়া কমবে ১০ হাজার টাকা, সঙ্গে সময় সাশ্রয় হবে এবং ভোগান্তি কমবে।

চট্টগ্রাম থেকে ফ্লাইট চালু হওয়াটা যুগান্তকারী পদক্ষেপ উল্লেখ করে জুনিয়র চেম্বারের সাবেক সভাপতি গিয়াস উদ্দিন বলছেন, গতবার ওমরাহ হজ শেষে ফিরে আসার সময় এয়ার এরাবিয়া ফ্লাইটে শারজাহ হয়ে চট্টগ্রাম আসতে হয়েছে। বাংলাদেশ বিমান থাকলে এই ভোগান্তি হত না; বাড়তি সময় লাগত না। নতুন রুটে ওমরাহ হজ করাটা এখন অনেক বেশি সহজ হবে।

চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বাংলাদেশ বিমানের ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপক আরিফুজ্জামান খান বলেন, ‘এই রুট চালু হলে সৌদি প্রবাসীরা এতে সবচেয়ে বেশি উপকৃত হবেন। নতুন রুটে একজন যাত্রী চট্টগ্রাম থেকে সরাসরি মদিনা যেতে পারবেন আবার জেদ্দা হয়ে চট্টগ্রামে আসতে পারবেন। আর জেদ্দা গেলে মদিনা থেকে সরাসরি চট্টগ্রাম পৌঁছাতে পারবেন। মদিনায় অবস্থানকারী প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য এটি সবচেয়ে বড় সুযোগ।’

জানা গেছে, নতুন রুটে একজন যাত্রীর বাংলাদেশ বিমানে চট্টগ্রাম-মদিনা যেতে খরচ হবে সর্বনিম্ন ৩৩ হাজার টাকা; আর ফিরতি পথে খরচ হবে ২৭ হাজার ৭৫০ টাকা। অর্থাৎ চট্টগ্রাম-মদিনা-চট্টগ্রাম বিমান ভাড়া পড়বে সর্বনিম্ন প্রায় ৬১ হাজার টাকা। আর চট্টগ্রাম-জেদ্দা-চট্টগ্রাম বিমান ভাড়া পড়বে সর্বনিম্ন ৭১ হাজার টাকা।

ভ্রমণ তারিখের যত কাছের সময়ে টিকিট কাটা হবে ততই খরচ বেশি পড়বে। আর আগেভাগে টিকিট কাটলে চট্টগ্রাম-মদিনা রুটে ভ্রমণ করলে অন্তত ১০ হাজার টাকা সাশ্রয় হবে।