অস্ট্রেলিয়ায় ভিসা জালিয়াতির অভিযোগে দূতাবাস কর্মকর্তা প্রত্যাহার

0

নিজস্ব প্রতিবেদক

ভিসা জালিয়াতির অভিযোগে অস্ট্রেলিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশ হাইকমিন এর প্রথম সচিব (ফাস্ট সেক্রেটারী) নাজমা আক্তারকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। অব্যাহতির পর গত বৃহস্পতিবার রাতেই অস্ট্রেলিয়ার ক্যানবেরা থেকে তাকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হয়।

অস্ট্রেলিয়ায় বসবাসরত মিয়ানমারের রোহিঙ্গাদের জাল ভ্রমণ ভিসা দিয়েছেন এমন অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে তাকে হাইকমিশন থেকে প্রত্যাহার করা হয় বলে জানা গেছে। বাংলাদেশ হাইকমিশনের এ কর্মকর্তার ভিসা জালিয়াতির বিষয়টি বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ান ফেডারেল পুলিশের তদন্তাধীন রয়েছে।

এ প্রসঙ্গে অস্ট্রেলিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মোহাম্মদ শফিউর রহমান এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি নিয়ে এই মুহুর্তে কোনো মন্তব্য করতে রাজী হননি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নাজমা আক্তার সাংবাদিকদের জানান , ‘আমার বিরুদ্ধে অভিযোগটি উদ্দেশ্যপ্রনোদিত। উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি পেলে আমি বিস্তারিত গণমাধ্যমকে বলবো।’

প্রথম সচিব নাজমা আক্তার দীর্ঘ ১৮ বছর চাকরি জীবনে অস্ট্রেলিয়ার ক্যানবেরায় বাংলাদেশ হাইকমিশনে দীর্ঘ সাত বছর এবং বাকী ১১ বছর পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ে ও কলেজে চাকরি করেছেন।

উল্লেখ্য, গত বছরের ২০ ডিসেম্বর নাজমা আক্তারের বিরুদ্ধে জাল ভিসার অভিযোগ উঠে। সেদিন অস্ট্রেলিয়া থেকে ছয়জন রোহিঙ্গা শরণার্থী ভ্রমণ ভিসা নিয়ে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেন। পরে ইমিগ্রেশন কর্মকর্তাদের বিষয়টি সন্দেহজনক মনে হওয়ায় তারা জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন এবং কাগজপত্র যাচাই-বাছাই শুরু করেন। রোহিঙ্গাদের পরে ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই অস্ট্রেলিয়ায় ফেরত পাঠানো হয়। সেই সূত্র ধরেই জাল ভিসার বিষয়টি বেরিয়ে আসে। ভিসাগুলোতে নকল সিল ও স্বাক্ষর ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে।